গীতবিতান(Gitabitan)


শিরোনাম বাণী
(৪৬) (৩৫৬) (২) (৭) (১৪৫) (১) (১৩৬) (১৬২) (১০) (৩৪) (৬) (৩৬) (১৩) (৫৭) (৮) (১) 
(৯) (১) (১৬৪) (৭) (৮৭) (১৫) (৯২) (৯৭) (১৯) (১৩১) (৪২) (৯২) (৮৬) (২৬) (৮) (৫৮) (১২৬) (৯১) 
পুরো (২১৭২)
Showing all songs.

শিরোনাম পর্যায়
অকারণে অকালে মোর পড়ল যখন ডাকপূজা
অগ্নিবীণা বাজাও তুমি কেমন ক'রেপূজা
অগ্নিশিখা, এসো এসোআনুষ্ঠানিক
অচেনাকে ভয় কী আমার ওরেপূজা
অজানা খনির নুতন মণিরপ্রেম
অজানা সুর কে দিয়ে যায় কানে কানেপ্রেম
অজ্ঞানে করো হে ক্ষমা তাতকালমৃগয়া
অধরা মাধুরী ধরেছি ছন্দোবন্ধনেপ্রেম
অনন্তসাগর মাঝে দাও তরী ভাসাইয়াপ্রেম ও প্রকৃতি
অনন্তের বাণী তুমিপ্রকৃতি
অনিমেষ আঁখি সেই কে দেখেছেপূজা
অনেক কথা বলেছিলেমপ্রেম
অনেক কথা যাও যে ব'লেপ্রেম
অনেক দিনের আমার যে গান আমারপ্রেম
অনেক দিনের মনের মানুষপ্রকৃতি
অনেক দিনের শূন্যতা মোরপূজা
অনেক দিয়েছ নাথপূজা
অনেক পাওয়ার মাঝে মাঝে প্রেম
অন্তর মম বিকশিত করোপূজা
অন্তরে জাগিছ অন্তর্যামীপূজা
অন্ধকারের উত্স হতে উত্সারিত আলোপূজা
অন্ধকারের মাঝে আমায় ধরেছপূজা
অন্ধজনে দেহো আলো মৃতজনে দেহো প্রাণপূজা
অবেলায় যদি এসেছ আমার বনেপ্রেম ও প্রকৃতি
অভিশাপ নয় নয়চণ্ডালিকা
অভয় দাও তো বলি আমারনাট্যগীতি
অমন আড়াল দিয়ে লুকিয়ে গেলে চলবে নাপূজা
অমল কমল সহজে জলের কোলেপূজা
অমল ধবল পালে লেগেছে মন্দপ্রকৃতি
অমৃতের সাগরেপূজা
অরূপ তোমার বাণীপূজা
অরূপবীণা রূপের আড়ালে লুকিয়ে বাজেপূজা
অলকে কুসুম না দিয়োপ্রেম
অলি বার বার ফিরে যায়প্রেম
অল্প লইয়া থাকি তাই মোরপূজা
অশান্তি আজ হানল এ কী দহনজ্বালাপ্রেম
অশ্রুনদীর সুদুর পারে প্রেম
অশ্রুভরা বেদনা দিকে দিকে জাগেপ্রকৃতি
অসীম আকাশে অগণ্য কিরণপূজা
অসীম কালসাগরে ভুবন ভেসে চলেছেপূজা
অসীম ধন তো আছে তোমারপূজা
অসুন্দরের পরম বেদনায়
অহো আস্পর্ধা একি তোদের নরাধমবাল্মীকি প্রতিভা
অহো কী দুঃসহ স্পর্ধাচিত্রাঙ্গদা
অয়ি বিষাদিনী বীণা আয় সখীজাতীয় সংগীত
অয়ি ভুবনমনোমোহিনী মাস্বদেশ
আঁখিজল মুছাইলে জননীপূজা
আঁধার অম্বরে প্রচন্ডপ্রকৃতি
আঁধার এল ব'লে তাই তোপূজা
আঁধার কুঁড়ির বাঁধন টুটেপ্রকৃতি
আঁধার রাতে একলা পাগল যায়পূজা
আঁধার শাখা উজল করিনাট্যগীতি
আঁধার সকলই দেখিপরিশিষ্ট
আঁধারের লীলা আকাশে আলোকলেখায়বিচিত্র
আঃ কাজ কী গোলমালেবাল্মীকি প্রতিভা
আঃ বেঁচেছি এখনকালমৃগয়া
আঃ বেঁচেছি এখন শর্মাবাল্মীকি প্রতিভা
আঃ‌ বেঁচেছি এখনকালমৃগয়া
আইলো আজি প্রাণসখাপূজা ও প্রার্থনা
আইলো শান্ত সন্ধ্যাপূজা ও প্রার্থনা
আকাশ আমায় ভরল আলোয়প্রকৃতি
আকাশ জুড়ে শুনিনু ওই বাজে পূজা
আকাশ হতে আকাশ পথেবিচিত্র
আকাশ হতে খসল তারাপ্রকৃতি
আকাশতলে দলে দলেপ্রকৃতি
আকাশভরা সূর্য-তারাপ্রকৃতি
আকাশে আজ কোন্‌ চরণেরপ্রেম
আকাশে তোর তেমনি আছে ছুটিবিচিত্র
আকাশে দুই হাতে প্রেম বিলায়পূজা
আকুল কেশে আসে, চায় ম্লাননয়নেপ্রেম
আগুনে হল আগুনময়পূজা
আগুনের পরশমণিপূজা
আগে চল্‌ আগে চল্‌ ভাইস্বদেশ
আগ্রহ মোর অধীর অতিচিত্রাঙ্গদা
আঘাত করে নিলে জিনেপূজা
আছ অন্তরে চিরদিনপূজা
আছ আকাশ পানে তুলেপ্রেম
আছ আকাশ-পানে তুলে মাথাপ্রেম
আছ আপন মহিমাপূজা
আছে তোমার বিদ্যে সাধ্যি জানাবাল্মীকি প্রতিভা
আছে দুঃখ আছে মৃত্যুপূজা
আছে মোর প্রাণ আছে মোর শ্বাসশ্যামা
আজ আকাশের মনের কথাপ্রকৃতি
আজ আসবে শ্যাম গোকুলে ফিরেনাট্যগীতি
আজ কি তাহার বারতা পেলপ্রকৃতি
আজ কিছুতেই যায় না মনেরপ্রকৃতি
আজ খেলাভাঙার খেলা খেলবি আয়প্রকৃতি
আজ জ্যোত্স্নারাতে সবাই গেছে বনেপূজা
আজ তারায় তারায় দীপ্তবিচিত্র
আজ তালের বনের করতালিপ্রকৃতি
আজ তোমারে দেখতে এলেমপ্রেম
আজ দখিনবাতাসেপ্রকৃতি
আজ ধানের ক্ষেতে রৌদ্রছায়াপ্রকৃতি
আজ নবীন মেঘের সুর লেগেছেপ্রকৃতি
আজ প্রথম ফুলের পাবপ্রকৃতি
আজ বরষার রূপ হেরি মানবেরপ্রকৃতি
আজ বারি ঝরে ঝরঝরপ্রকৃতি
আজ বুঝি আইল প্রিয়তমপূজা ও প্রার্থনা
আজ যেমন ক'রে গাইছে আকাশপ্রেম
আজ শ্রাবণের আমন্ত্রণেপ্রকৃতি
আজ শ্রাবণের পূর্ণিমাতেপ্রকৃতি
আজ সবার রঙে রঙ মিশাতে হবেপ্রেম
আজকে তবে মিলে সবেবাল্মীকি প্রতিভা
আজকে মোরে বোলো না কাজ করতেপূজা
আজি গোধূলিলগনে এই বাদলগগনেপ্রেম
আজি আঁখি জুড়াল হেরিয়েপ্রেম
আজি উন্মাদ মধুনিশি ওগোনাট্যগীতি
আজি এ আনন্দসন্ধ্যাপূজা
আজি এ নিরালা কুঞ্জে আমারপ্রেম
আজি এ ভারত লজ্জিত হেস্বদেশ
আজি এই গন্ধবিধুর সমীরণেপ্রকৃতি
আজি এনেছে তাঁহারি আশীর্বাদপূজা ও প্রার্থনা
আজি ওই আকাশ পরে সুধায় ভরেপ্রকৃতি
আজি কমলমুকুলদল খুলিলপ্রকৃতি
আজি কোন সুরে বাঁধিবপ্রেম ও প্রকৃতি
আজি কোন্‌ ধন হতে বিশ্বেপূজা
আজি ঝর ঝর মুখর বাদরদিনেপূজা
আজি ঝড়ের রাতেপ্রকৃতি
আজি তোমায় আবার চাই শুনাবারেপ্রকৃতি
আজি দক্ষিনপবনেপ্রেম
আজি দখিন দুয়ার খোলাপ্রকৃতি
আজি নাহি নাহি নিদ্রা আঁখিপাতেপূজা
আজি নির্ভয়নিদ্রিত ভুবনে জাগেপূজা
আজি প্রণমি তোমারেপূজা
আজি বরিষনমুখরিত শ্রাবণরাতিপ্রকৃতি
আজি বর্ষারাতের শেষেপ্রকৃতি
আজি বসন্ত জাগ্রত দ্বারেপ্রকৃতি
আজি বহিছে বসন্তপবন সুমন্দ তোমারিপূজা
আজি বাংলাদেশের হৃদয় হতেস্বদেশ
আজি বিজন ঘরে নিশীথপূজা
আজি মম জীবনে নামিছে ধীরেপূজা
আজি মম মন চাহে জীবনবন্ধুরেপূজা
আজি মর্মরধ্বনি কেন জাগিল রেপূজা
আজি মেঘ কেটে গেছে সকালবেলায়প্রকৃতি
আজি মোর দ্বারে কাহার মুখ প্রেম ও প্রকৃতি
আজি যত তারা তব আকাশেপূজা
আজি যে রজনী যায়প্রেম
আজি রাজ-আসনে তোমারে পূজা ও প্রার্থনা
আজি শরততপনে প্রভাতস্বপনেপ্রকৃতি
আজি শুভ শুভ্র প্রাতে পূজা
আজি শুভদিনে পিতার ভবনেপূজা ও প্রার্থনা
আজি শ্রাবনঘনগহন মোহেপ্রকৃতি
আজি সাঁঝের যমুনায় গোপ্রেম
আজি হৃদয় আমারপ্রকৃতি
আজি হেরি সংসার অমৃতময়পূজা
আজিকে এই সকালবেলাতেপূজা
আজু সখি মুহু মুহুভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
আধাঁর রজনী পোহালো জগত পূরিল পুলকেপূজা
আধেক ঘুমে নয়ন চুমেবিচিত্র
আনন্দ তুমি স্বামিপূজা
আনন্দ রয়েছে জাগি ভুবনেপূজা
আনন্দগান উঠুক তবে বাজিপূজা
আনন্দধারা বহিছে ভুবনেপূজা
আনন্দধ্বনি জাগাও গগনেস্বদেশ
আনন্দলোকে মঙ্গলালোকেপূজা
আনন্দেরই সাগর হতে এসেছে আজ বানবিচিত্র
আন্‌ গো তোরা কার কী আছেপ্রকৃতি
আন্‌মনা আন্‌মনাপ্রেম
আপন হতে বাহির হয়ে বাইরে দাঁড়াপূজা
আপনহারা মাতোয়ারা আছি তোমারপ্রেম ও প্রকৃতি
আপনাকে এই জানা আমার ফুরাবে নাপূজা
আপনারে দিয়ে রচিলি রে কিপূজা
আপনি অবশ হলি, তবে স্বদেশ
আপনি আমার কোন্‌খানেপূজা
আবার এরা ঘিরেছে মোর মনপূজা
আবার এসেছে আষাঢ়প্রকৃতি
আবার যদি ইচ্ছা করপূজা
আবার শ্রাবণ হয়ে এলে ফিরেপ্রকৃতি
আমরা আহিরিনীশ্যামা
আমরা খুঁজি খেলার সাথিবিচিত্র
আমরা চাষ করি আনন্দেবিচিত্র
আমরা ঝরে পড়া ফুলদলপ্রেম ও প্রকৃতি
আমরা তারেই জানি তারেই পূজা
আমরা দুজনা স্বর্গ খেলনা গড়িব নাপ্রেম
আমরা দুর আকাশের নাট্যগীতি
আমরা না গান গাওয়ার দল রেবিচিত্র
আমরা নূতন প্রাণের চরপ্রকৃতি
আমরা নূতন যৌবনেরই দূতবিচিত্র
আমরা পথে পথে যাব সারে সারেস্বদেশ
আমরা বসব তোমার সনেনাট্যগীতি
আমরা মিলেছি আজ মায়ের ডাকেস্বদেশ
আমরা যে শিশু অতি অতিক্ষুদ্র মনপূজা ও প্রার্থনা
আমরা লক্ষ্মীছাড়ার দলবিচিত্র
আমরা সবাই রাজাস্বদেশ
আমা-তরে অকারণে কালমৃগয়া
আমাকে যে বাধঁবে ধরেবিচিত্র
আমাদের খেপিয়ে বেড়ায় যেপূজা
আমাদের পাকবে না চুল গোবিচিত্র
আমাদের ভয় কাহারে বিচিত্র
আমাদের যাত্রা হল শুরুস্বদেশ
আমাদের শান্তিনিকেতনবিচিত্র
আমাদের সখীরে কে নিয়ে যাবে রেনাট্যগীতি
আমার এই রিক্ত ডালিপ্রেম
আমার ব্যথা যখন আনে আমায় তোমার দ্বারেপূজা
আমার যাবার বেলাতেপূজা
আমার শেষ রাগিণীর প্রথমপ্রেম
আমার হৃদয়সমুদ্রতীরে কে তুমিপূজা
আমার অঙ্গে অঙ্গে কে বাজায় বাঁশিপ্রেম
আমার অন্ধপ্রদীপ শূন্য-পানেবিচিত্র
আমার অভিমানের বদলে আজপূজা
আমার আঁধার ভালোপূজা
আমার আপন গান আমার অগোচরে প্রেম
আমার আর হবে না দেরিপূজা
আমার এ ঘরে আপনার করেপূজা
আমার এ পথ তোমার পথপ্রেম
আমার এই পথ-চাওয়াতেই আনন্দপূজা
আমার একটি কথাপ্রেম
আমার কন্ঠ তাঁরে ডাকেপূজা
আমার কন্ঠ হতে গান কে নিলপ্রেম
আমার খেলা যখন ছিলপূজা
আমার গোধূলিলগন এল বুঝি কাছেপূজা
আমার ঘুর লেগেছেবিচিত্র
আমার চিত্র, অতি বিচিত্রনাট্যগীতি
আমার জীবনপাত্র উচ্ছলিয়া মাধুরিপ্রেম
আমার জীর্ণ পাতা যাবার বেলায়বিচিত্র
আমার জ্বলে নি আলো অন্ধকারেপ্রেম
আমার ঢালা গানের ধারাপূজা
আমার দিন ফুরালোপ্রকৃতি
আমার দোসর যে জনপ্রেম
আমার না বলা বাণীর ঘন যামিনীরপূজা
আমার নাইবা হল পারে যাওয়া বিচিত্র
আমার নিকড়িয়া রসের রসিকনাট্যগীতি
আমার নিখিল ভুবন হারালেমপ্রেম
আমার নিশীথ রাতের বাদলধারাপ্রেম
আমার নয়ন তব নয়নেরপ্রেম
আমার নয়ন তোমার নয়নতলেপ্রেম
আমার নয়ন ভুলানো এলেপ্রকৃতি
আমার পথে পথে পাথরপূজা
আমার পরান যাহা চায়প্রেম
আমার পরান লয়ে কী খেলাপ্রেম
আমার প্রাণ যে ব্যাকুল হয়েছেকালমৃগয়া
আমার প্রাণে গভীর গোপনপূজা
আমার প্রাণের 'পরে চলে গেল কেপ্রেম
আমার প্রাণের মানুষ আছে প্রাণেপূজা
আমার প্রানের মাঝে সুধাপ্রেম
আমার প্রিয়ার ছায়াপূজা
আমার বনে বনে ধরল মুকুলপ্রকৃতি
আমার বাণী আমার প্রাণে লাগেপূজা
আমার বিচার তুমি করোপূজা
আমার বেলা যে যায় সাঁঝ-বেলাতেপূজা
আমার ভাঙা পথের রাঙা ধুলায়পূজা
আমার ভুবন তো আজ হলপ্রেম
আমার মন কেমন করেপ্রেম
আমার মন চেয়ে রয় মনে মনেপ্রেম
আমার মন তুমি নাথ লবেপূজা
আমার মন বলে চাই চাইপ্রেম
আমার মন মানে নাপ্রেম
আমার মন, যখন জাগলি না রেপূজা
আমার মনের কোণের বাইরেপ্রেম
আমার মনের মধ্যে বাজিয়ে দিয়ে গেছেচণ্ডালিকা
আমার মনের মাঝে যে গান বাজেপ্রেম
আমার মল্লিকা বনেপূজা
আমার মাঝে তোমারি মায়াপূজা
আমার মাথা নত করে দাওপূজা
আমার মালার ফুলের দলেপ্রকৃতি
আমার মিলন লাগি তুমিপূজা
আমার মুক্তি আলোয় আলোয়পূজা
আমার মুখের কথা তোমারপূজা
আমার যদিই বেলা যায় গো বয়েপ্রেম
আমার যা আছেপূজা
আমার যাবার বেলাতে সবাইপূজা
আমার যাবার বেলায় পিছে ডাকেপ্রেম
আমার যাবার সময় হলবিচিত্র
আমার যে আসে কাছে যে যায় চলেপূজা
আমার যে গান তোমার পরশপূজা
আমার যে দিন ভেসে গেছেপ্রকৃতি
আমার যে সব দিতে হবেপূজা
আমার যেতে সরে না মনপ্রেম
আমার রাত পোহালো শারদপ্রকৃতি
আমার লতার প্রথম মুকুলপ্রেম
আমার শেষ পারানির কড়িপূজা
আমার সকল কাঁটা ধন্য করেপূজা
আমার সকল দুখের প্রদীপপূজা
আমার সকল নিয়ে বসে আছিপ্রেম
আমার সকল রসের ধারাপূজা
আমার সত্য মিথ্যা সকলি ভুলায়ে দাওপূজা
আমার সুরে লাগে তোমার হাসিপূজা
আমার সোনার বাংলাস্বদেশ
আমার হিয়ার মাঝে লুকিয়েপূজা
আমার হৃদয় তোমার আপনপূজা
আমার-মনে গোপন কোণেবিচিত্র
আমারে করো জীবনদানপূজা ও প্রার্থনা
আমারে করো তোমার বীণাপ্রেম
আমারে কে নিবি ভাইপূজা
আমারে ডাক দিল কে ভিতর পানেবিচিত্র
আমারে তুমি অশেষ করেছপূজা
আমারে দিই তোমার হাতেপূজা
আমারে পাড়ায় পাড়ায় খেপিয়ে বেড়ায়পূজা
আমারে বাঁধবি তোরাবিচিত্র
আমারে যদি জাগালে আজিপ্রকৃতি
আমারেও করো মার্জনাপূজা ও প্রার্থনা
আমায় ক্ষমো হে ক্ষমো বিচিত্র
আমায় ছ জনায় মিলেপূজা ও প্রার্থনা
আমায় থাকতে-দেনা আপন-মনেপ্রেম
আমায় দাও গো ব'লেপূজা
আমায় দোষী করোচণ্ডালিকা
আমায় বাঁধবে যদি কাজের ডোরেপূজা
আমায় বোলো না গাহিতে বলোস্বদেশ
আমায় ভুলতে দিতে নাইকোপূজা
আমায় মুক্তি যদি দাও বাঁধনপূজা
আমি এলেম তারি দ্বারেপ্রেম
আমি চাহিতে এসেছি শুধুপ্রেম
আমি তোমার সঙ্গে বেঁধেছি আমার প্রাণপ্রেম
আমি স্বপনে রয়েছি ভোরপ্রেম ও প্রকৃতি
আমি আছি তোমার সভারপূজা
আমি আশায় আশায় থাকিপ্রেম
আমি একলা চলেছি এ ভবেবিচিত্র
আমি কান পেতে রইপ্রেম
আমি কারে ডাকি গোপূজা
আমি কারেও বুঝি নেমায়ার খেলা
আমি কারেও বুঝি নে শুধু বুঝেছিমায়ার খেলা
আমি কী গান গাব যেপ্রকৃতি
আমি কী বলে করিব নিবেদনপূজা
আমি কেবল তোমার দাসীপ্রেম
আমি কেবল ফুল জোগাবনাট্যগীতি
আমি কেবলই স্বপন করেছি বপনবিচিত্র
আমি কেমন করিয়া জানাব আমারপূজা
আমি চঞ্চল হেবিচিত্র
আমি চাই তাঁরেচণ্ডালিকা
আমি চিত্রাঙ্গদা আমি রাজেন্দ্রনন্দিনীচিত্রাঙ্গদা
আমি চিনি গো চিনি তোমারেপ্রেম
আমি জেনে শুনে তবু ভুলে আছিপূজা
আমি জেনে শুনে বিষমায়ার খেলা
আমি জ্বালব না মোর বাতায়নে পূজা
আমি তখন ছিলেম মগন গহন ঘুমের ঘোরেপ্রকৃতি
আমি তারেই খুঁজেই বেড়াইপূজা
আমি তারেই জানি তারেই জানিপূজা
আমি তো বুঝেছি সবমায়ার খেলা
আমি তোমার প্রেমে হব সবারপ্রেম
আমি তোমার সংগে বাঁধি আমার প্রাণপ্রেম
আমি তোমারি মাটির কন্যাবিচিত্র
আমি তোমারে করিব নিবেদনচিত্রাঙ্গদা
আমি তোমারে করিব নিবেদন আমারচিত্রাঙ্গদা
আমি তোমায় যত শুনিয়েছিলেম গানপূজা
আমি দীন, অতি দীনপূজা
আমি দেখব না আমি দেখব নাচণ্ডালিকা
আমি নিশি নিশি কত রচিবপ্রেম
আমি নিশিদিন তোমায় ভালোবাসিপ্রেম
আমি পথভোলা এক পথিক এসেছিপ্রকৃতি
আমি ফিরব না রে ফিরব না আরবিচিত্র
আমি ফুল তুলিতে এলেম বনেপ্রেম
আমি বণিক আমি চলেছিশ্যামা
আমি বহু বাসনায় প্রাণপণে চাইপূজা
আমি ভয় করব না ভয় করব নাস্বদেশ
আমি ভয় করি নে মাচণ্ডালিকা
আমি মারের সাগর পাড়ি দেবপূজা
আমি যখন ছিলেম অন্ধপূজা
আমি যখন তাঁর দুয়ারেপূজা
আমি যাব না গো অমনি চলেপ্রেম
আমি যে আর সইতে পারি নেপ্রেম
আমি যে গান গাই জানি নে সেপ্রেম
আমি রূপে তোমায় ভোলাব নাপ্রেম
আমি শ্রাবণ-আকাশে ওইপ্রকৃতি
আমি সংসারে মন দিয়েছিনুপূজা
আমি সন্ধ্যাদীপের শিখাবিচিত্র
আমি সব নিতে চাইবিচিত্র
আমি হৃদয়েতে পথ কেটেছিপূজা
আমি হৃদয়ের কথা বলিতে ব্যাকুলপ্রেম
আমি হেথায় থাকি শুধু পূজা
আমিই শুধু রইনু বাকিবিচিত্র
আর কত দূরে আছে সে আনন্দধামপূজা
আর কি আমি ছাড়ব তোরেনাট্যগীতি
আর কেন আর কেনমায়ার খেলা
আর দেরী করিস্‌ নে দেখচণ্ডালিকা
আর নহে, আর নহেপ্রেম
আর না আর না এখানে আর নাবাল্মীকি প্রতিভা
আর নাই যে দেরি, নাই যে দেরি প্রকৃতি
আর নাই রে বেলা নামল ছায়াপ্রেম
আর রেখো না আঁধারেপূজা
আরাম ভাঙা উদাস সুরেপূজা
আরে কী এত ভাবনাবাল্মীকি প্রতিভা
আরো আঘাত সইবে আমারপূজা
আরো আরো প্রভু, আরো আরোপূজা
আরো একটু বসো তুমিপ্রেম
আরো কিছুখন নাহয় বসিয়ো পাশেপ্রেম
আরো চাই যে আরো চাই গোপূজা
আলো আমার আলো ওগোবিচিত্র
আলো যে আজ গান করে মোর প্রাণে গোপূজা
আলোক-চোরা লুকিয়ে এলবিচিত্র
আলোকের এই ঝর্নাধারায়পূজা
আলোকের পথে প্রভুআনুষ্ঠানিক সংগীত
আলোর অমল কমলখানি কে ফুটালেপ্রকৃতি
আলোয় আলোকময় করে হেপূজা
আষাঢ় কোথা হতে আজ পেলি ছাড়াপ্রকৃতি
আষাঢ়সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলপ্রকৃতি
আসা যাওয়ার পথের ধারেপ্রেম
আসা-যাওয়ার মাঝখানেপূজা
আহা আজি এ বসন্তেমায়ার খেলা
আহা এ কী আনন্দশ্যামা
আহা কেমনে বধিল তোরেকালমৃগয়া
আহা তোমার সঙ্গে প্রাণের খেলাপ্রেম
আহা মরি মরিশ্যামা
আহা, জাগি পোহালো বিভাবরীপ্রেম
আহ্‌বান আসিল মহোৎসবেপ্রকৃতি
আয় আমাদের অঙ্গনেআনুষ্ঠানিক
আয় আয় রে পাগল ভুলবি রেবিচিত্র
আয় তবে সহচরী হাতে হাতে ধরি ধরিপ্রেম
আয় তোরা আয়চণ্ডালিকা
আয় মা, আমার সাথেবাল্মীকি প্রতিভা
আয় রে আয় রে সাঁঝের বানাট্যগীতি
আয় রে মোরা ফসল কাটি আনুষ্ঠানিক
আয় লো সজনী সবে মিলেকালমৃগয়া
ইচ্ছা যবে হবে লইয়ো পারেপূজা
ইচ্ছে ইচ্ছেনাট্যগীতি
উজ্জ্বল করো হে আজিআনুষ্ঠানিক
উঠি চলো সুদিন আইলোপূজা ও প্রার্থনা
উতল ধারায় বাদল ঝরেপ্রকৃতি
উতল হাওয়া লাগল আমারপ্রেম
উদাসিনী-বেশে বিদেশিনী কে সেপ্রেম
উলঙ্গিনী নাচে রণরঙ্গেনাট্যগীতি
উড়িয়ে ধ্বজা অভ্রভেদী রথেপূজা
এ অন্ধকার ডুবাও তোমারপূজা
এ আবরণ ক্ষয় হবে গোপূজা
এ কি গভীর বাণী এলপ্রকৃতি
এ কি সত্য সকলই সত্যনাট্যগীতি
এ কি স্বপ্ন এ কি মায়ামায়ার খেলা
এ কী আকুলতা ভুবনেপ্রকৃতি
এ কী এ ঘোর বন বাল্মীকি প্রতিভা
এ কী খেলা হে সুন্দরীশ্যামা
এ কী মায়া লুকাও কায়াপ্রকৃতি
এ কী সুগন্ধহিল্লোল বহিলপূজা
এ কী সুধারস আনেপ্রেম
এ কী হরষ হেরি কাননেপ্রেম ও প্রকৃতি
এ কেমন হল মন আমারবাল্মীকি প্রতিভা
এ জন্মের লাগি শ্যামা
এ তো খেলা নয় খেলা নয়প্রেম
এ নতুন জন্ম, নতুন জন্মচণ্ডালিকা
এ পথ গেছে কোন্‌খানে গো কোন্‌খানেপূজা
এ পথে আমি-যে গেছি বার বারপ্রেম
এ পরবাসে রবে কে হায় পূজা
এ পারে মুখর হল কেকাপ্রেম
এ বেলা ডাক পড়েছে কোন্‌খানেপ্রকৃতি
এ ভাঙা সুখের মাঝে মায়ার খেলা
এ ভারতে রাখো নিত্য, প্রভুস্বদেশ
এ ভালোবাসার যদি দিতে প্রতিদানপ্রেম ও প্রকৃতি
এ মণিহার আমায় নাহি সাজেপূজা
এ মোহ আবরণ খুলে দাওপূজা
এ যে মোর আবরণপূজা
এ শুধু অলস মায়াবিচিত্র
এ হরিসুন্দর এ হরিসুন্দরপূজা ও প্রার্থনা
এ হরিসুন্দর এ হরিসুন্দর মস্তক নমিপূজা ও প্রার্থনা
এই আসা যাওয়ার খেয়ার কূলেপূজা
এই উদাসী হাওয়ার পথে পথেপ্রেম
এই একলা মোদের হাজার মানুষনাট্যগীতি
এই কথাটা ধরে রাখিসপূজা
এই কথাটাই ছিলেম ভুলেপ্রকৃতি
এই কথাটি মনে রেখো, তোমাদের এই হাসিখেলায়প্রেম
এই করেছ ভালোপূজা
এই তো তোমার আলোকধেনুপূজা
এই তো ভরা হল ফুলে ফুলেনাট্যগীতি
এই তো ভালো লেগেছিল আলোর নাচনবিচিত্র
এই পেটিকা আমার শ্যামা
এই বুঝি মোর ভোরের তারাপ্রেম
এই বুঝি মোর ভোরের তারা এলপ্রেম
এই বেলা সবে মিলে চলো হোবাল্মীকি প্রতিভা
এই মলিন বস্ত্র ছাড়তে হবেপূজা
এই মৌমাছিদের ঘরছাড়াপ্রকৃতি
এই যে কালো মাটির বাসাপূজা
এই যে হেরি গো দেবী আমারিবাল্মীকি প্রতিভা
এই লভিনু সঙ্গ তব, সুন্দর হে সুন্দরপূজা
এই শ্রাবণ বেলা বাদল ঝরাপ্রকৃতি
এই শ্রাবণের বুকের ভিতর আগুন আছেপ্রকৃতি
এই সকাল বেলার বাদল আঁধারেপ্রকৃতি
এই-তো তোমার প্রেম, ওগো হৃদয়হরণপূজা
এইবার আয়নার সামনে নাচ্‌চণ্ডালিকা
এক ডোরে বাঁধা আছি মোরা সকলেবাল্মীকি প্রতিভা
এক ফাগুনের গান সে আমারপ্রকৃতি
এক সূত্রে বাঁধিয়াছি সহস্রটি মনজাতীয় সংগীত
এক হাতে ওর কৃপাণ আছেপূজা
একটি নমস্কারে প্রভু একটি নমস্কারেপূজা
একটুকু ছোওয়া লাগেপূজা
একদা তুমি প্রিয়ে আমারি এ তরুমূলেপ্রেম
একদা প্রাতে কুঞ্জতলে নাট্যগীতি
একদিন চিনে নেবে তারেপ্রেম
একদিন যারা মেরেছিল তারে গিয়েআনুষ্ঠানিক সংগীত
একবার তোরা মা বলিয়া ডাক্‌জাতীয় সংগীত
একমনে তোর একতারাতেপূজা
একলা ব'সে একে একে অন্যমনেপ্রেম
একলা বসে বাদল-শেষেপ্রকৃতি
একলা বসে হেরো তোমার ছবিপ্রেম
একি অন্ধকার এ ভারতভূমিজাতীয় সংগীত
একি এ সুন্দর শোভাপূজা
একি এ, একি এ, স্থিরচপলাবাল্মীকি প্রতিভা
একি করুণা করুণাময়পূজা
একি গভীর বাণী এল ঘনপ্রকৃতি
একি লাবণ্যে পূর্ণ প্রাণপূজা
এখন আমার সময় হলপূজা
এখন আর দেরি নয়স্বদেশ
এখন করব কী বল্‌বাল্মীকি প্রতিভা
এখনো আঁধার রয়েছে হে নাথপূজা
এখনো কেন সময় নাহি হলপ্রেম
এখনো গেল না আঁধার এখনো রহিল বাধাপূজা
এখনো ঘোর ভাঙে না তোর যেপূজা
এখনো তারে চোখে দেখি নিপ্রেম
এত আনন্দধ্বনি উঠিল কোথায়পূজা
এত আলো জ্বালিয়েছ এই গগনেপূজা
এত দিন যে বসে ছিলেম পথ চেয়েপ্রকৃতি
এত ফুল কে ফোটালেনাট্যগীতি
এত রঙ্গ শিখেছ কোথাবাল্মীকি প্রতিভা
এতক্ষণে বুঝি এলি রেকালমৃগয়া
এতদিন তুমি সখা চাহ নি কিছুশ্যামা
এতদিন পরে মোরেনাট্যগীতি
এতদিন পরে, সখীপ্রেম ও প্রকৃতি
এতদিন বুঝি নাইমায়ার খেলা
এদিন আজি কোন ঘরে গোপূজা
এনেছ ওই শিরীষ বকুল আমের মুকুলপ্রকৃতি
এনেছি মোরা এনেছি মোরাকালমৃগয়া
এনেছি মোরা এনেছি মোরা রাশি রাশিবাল্মীকি প্রতিভা
এবার অবগুণ্ঠন খোলোপ্রকৃতি
এবার আমায় ডাকলে দূরেপূজা
এবার উজাড় করে লও হে আমারপ্রেম
এবার এল সময় রে তোর পূজা
এবার তো যৌবনের কাছেপ্রকৃতি
এবার তোর মরা গাঙেস্বদেশ
এবার দুঃখ আমার অসীম পাথার পার হলপূজা
এবার নীরব করে দাও হেপূজা
এবার বিদায়বেলার সুর ধরোপ্রকৃতি
এবার বুঝি ভোলার বেলা হলপ্রেম ও প্রকৃতি
এবার বুঝেছি সখা, এ খেলাপূজা ও প্রার্থনা
এবার ভাসিয়ে দিতে হবেপ্রকৃতি
এবার মিলন হাওয়ায় হাওয়ায়প্রেম
এবার যমের দুয়োর খোলা পেয়েবিচিত্র
এবার রঙিয়ে গেল হৃদয়গগনপূজা
এবার সখী সোনার মৃগপ্রেম
এমন আর কতদিন চলে যাবেপরিশিষ্ট
এমন আর কতদিন চলে যাবে রেপরিশিষ্ট
এমন দিনে তারে বলা যায়প্রেম
এমনি ক'রেই যায় যদি দিন যাক নাবিচিত্র
এমনি করে ঘুরিব দূরে বাহিরেপূজা
এরা পরকে আপন করে আপনারে পরপ্রেম
এরা সুখের লাগি চাহেমায়ার খেলা
এরে ক্ষমা কোরো সখাচিত্রাঙ্গদা
এরে ভিখারি সাজায়ে কী রঙ্গ তুমি করিলেপূজা
এল যে শীতের বেলাপ্রকৃতি
এলেম নতুন দেশেপ্রেম
এস এস বসন্ত ধরাতলেপ্রকৃতি
এসেছি গো এসেছিপ্রেম
এসেছি প্রিয়তম ক্ষমো মোরে ক্ষমোশ্যামা
এসেছিনু দ্বারে তব শ্রাবণরাতেপ্রকৃতি
এসেছিলে তবু আস নাইপ্রকৃতি
এসেছে সকলে কত আশে দেখো চেয়েপূজা
এসো আমার ঘরেপ্রেম
এসো এসো এসো প্রিয়েশ্যামা
এসো এসো ওগো শ্যামছায়াঘন দিনপ্রেম ও প্রকৃতি
এসো এসো পুরুষোত্তমপ্রেম
এসো এসো প্রাণের উৎসবেআনুষ্ঠানিক
এসো এসো ফিরে এসোপ্রেম
এসো এসো হে তৃষ্ণার জলপ্রকৃতি
এসো গো এসো বনদেবতাপরিশিষ্ট
এসো গো জ্বেলে দিয়ে যাও প্রদীপখানিপ্রকৃতি
এসো নীপবনে ছায়াবীথিতলেপূজা
এসো শরতের অমল মহিমাপ্রকৃতি
এসো শ্যামল সুন্দরপূজা
এসো হে এসো সজল ঘনপ্রকৃতি
এসো হে গৃহদেবতাআনুষ্ঠানিক
এসো হে বৈশাখ এসো এসোপ্রকৃতি
ঐ দেখ্ পশ্চিমে মেঘ ঘনালোচণ্ডালিকা
ও অকূলের কূল ও অগতির গতিপূজা
ও আমার চাঁদের আলোপ্রকৃতি
ও আমার দেশের মাটিস্বদেশ
ও আমার ধ্যানেরই ধনপ্রেম
ও আষাঢ়ের পূর্ণিমা আমারপ্রকৃতি
ও কথা কেন নেয় না কানেশ্যামা
ও কথা বোলো না তারেপ্রেম ও প্রকৃতি
ও কি এল ও কি এল নাবিচিত্র
ও কী কথা বল সখীনাট্যগীতি
ও কেন চুরি করে চায়প্রেম
ও কেন ভালোবাসা জানাতে আসেপূজা
ও গান আর গাস্‌ নেপ্রেম ও প্রকৃতি
ও চাঁদ চোখের জলের লাগল জোয়ারপ্রেম
ও জান না কিশ্যামা
ও জোনাকি কী সুখে ওই ডানা দুটিবিচিত্র
ও তো আর ফিরবে না রেনাট্যগীতি
ও দেখবি রে ভাই আয় রে ছুটেকালমৃগয়া
ও দেখা দিয়ে যে চলে গেলপ্রেম
ও নিঠুর আরো কি বাণ তোমার তূণে আছেপূজা
ও নিষ্ঠুর মেয়েচণ্ডালিকা
ও ভাই কানাই কারে জানাই দুঃসহবিচিত্র
ও ভাই দেখে যাকালমৃগয়া
ও মঞ্জরী ও মঞ্জরীপ্রকৃতি
ও যে মানে না মানাপ্রেম
ওই অমল হাতে রজনী প্রাতে আপনি জ্বালোপূজা
ওই আঁখি রে ফিরে ফিরে চেয়ো নানাট্যগীতি
ওই আলো যে যায় রে দেখাপূজা
ওই আসনতলের মাটির পরে লুটিয়ে রবপূজা
ওই আসে ওই অতি ভৈরব হরষেপ্রকৃতি
ওই কথা বলো সখী বলো আর বারপ্রেম ও প্রকৃতি
ওই কি এলে আকাশপারে দিক্-ললনার প্রিয়প্রকৃতি
ওই কে আমায় ফিরে ডাকেমায়ার খেলা
ওই কে গো হেসে চায়মায়ার খেলা
ওই জানালার কাছে বসে আছেনাট্যগীতি
ওই ঝঞ্ঝার ঝঙ্কারে ঝঙ্কারে বাজল ভেরীবিচিত্র
ওই পোহাইল তিমিররাতিপূজা
ওই বটে ওই চোর ওই চোরশ্যামা
ওই বুঝি কালবৈশাখীপ্রকৃতি
ওই মধুর মুখ জাগে মনেপ্রেম
ওই মরণের সাগরপারে চুপে চুপেপূজা
ওই মহামানব আসেআনুষ্ঠানিক সংগীত
ওই মালতীলতা দোলেপ্রকৃতি
ওই মেঘ করে বুঝি গগনেবাল্মীকি প্রতিভা
ওই রে তরী দিল খুলেপূজা
ওই শুনি যে চরণধ্বনি রেপূজা
ওই সাগরের ঢেউয়ে ঢেউয়ে বাজলবিচিত্র
ওই-যে ঝড়ের মেঘের কোলেপ্রকৃতি
ওকি সখা কেন মোরে কর তিরস্কারপ্রেম ও প্রকৃতি
ওকি সখা মুছ আঁখিপ্রেম ও প্রকৃতি
ওকে কেন কাঁদালি ও যে কেঁদে চলে যায়প্রেম ও প্রকৃতি
ওকে ছুঁয়ো না ছুঁয়ো না ছিচণ্ডালিকা
ওকে ধরিলে তো ধরা দেবে নাপ্রেম
ওকে বলো সখি বলো প্রেম
ওকে বলো সখী বলোমায়ার খেলা
ওকে বাঁধিবি কে রে হবে যে ছেড়ে দিতেপ্রেম
ওকে বোঝা গেল না চলে আয়মায়ার খেলা
ওগো আমার চির অচেনা পরদেশীপ্রেম
ওগো আমার প্রাণের ঠাকুরপূজা
ওগো আমার শ্রাবণমেঘের খেয়াতরীর মাঝিপ্রকৃতি
ওগো এত প্রেম-আশাপ্রেম
ওগো কাঙাল আমারে কাঙাল করেছপ্রেম
ওগো কিশোর আজি তোমার দ্বারেপ্রেম
ওগো কে যায় বাঁশরি বাজায়েপ্রেম
ওগো জলের রানী ঢেউ দিয়ো নাপ্রেম ও প্রকৃতি
ওগো ডেকো না মোরে ডেকো নাচণ্ডালিকা
ওগো তুমি পঞ্চদশী তুমি পৌঁছিলে পূর্ণিমাতেপ্রকৃতি
ওগো তোমরা যত পাড়ার মেয়েচণ্ডালিকা
ওগো তোমরা সবাই ভালোবিচিত্র
ওগো তোমার চক্ষু দিয়ে মেলেপ্রেম
ওগো তোরা কে যাবি পারেবিচিত্র
ওগো দখিন হাওয়া ও পথিক হাওয়াপ্রকৃতি
ওগো দেখি আঁখি তুলে চাওমায়ার খেলা
ওগো দেবতা আমার পাষাণদেবতাপূজা ও প্রার্থনা
ওগো নদী আপন বেগে পাগল-পারাবিচিত্র
ওগো পথের সাথি নমি বারম্বারপূজা
ওগো পরোশিনি শুনি বনপথে সুর মেলে যায়প্রেম
ওগো পুরবাসীবিচিত্র
ওগো বঁধু সুন্দরীপ্রেম
ওগো ভাগ্যদেবী পিতামহীবিচিত্র
ওগো মা ঐ কথাই তো ভালোচণ্ডালিকা
ওগো শান্ত পাষাণমুরতি সুন্দরীপ্রেম
ওগো শেফালিবনের মনের কামনাপ্রকৃতি
ওগো শোনো কে বাজায়প্রেম
ওগো সখী দেখি দেখি মন কোথা আছেপ্রেম
ওগো সাঁওতালি ছেলেপ্রকৃতি
ওগো সুন্দর একদা কী জানিপূজা
ওগো স্বপ্নস্বরূপিণী তব অভিসারেরপ্রেম
ওগো হৃদয়বনের শিকারীনাট্যগীতি
ওগো, তোরা কে যাবি পারেবিচিত্র
ওঠে রে মলিনমুখ চলো এইবারবিচিত্র
ওঠো ওঠো রে বিফলে প্রভাত বহে যায় যেপূজা
ওঠো রে মলিনমুখ চলো এইবারবিচিত্র
ওদের কথায় ধাঁদা লাগেপূজা
ওদের বাঁধন যতই শক্ত হবেস্বদেশ
ওদের সাথে মেলাও যারাপূজা
ওমা ওমা ওমা ফিরিয়ে নে তোর মন্ত্রচণ্ডালিকা
ওর ভাব দেখে যে পায় হাসিবিচিত্র
ওর মানের এ বাঁধ টুটবে না কিনাট্যগীতি
ওরা অকারণে চঞ্চলপ্রকৃতি
ওরা কে যায় পীতবসন পরাচণ্ডালিকা
ওরে ঝড় নেবে আয় আয় রেপ্রকৃতি
ওরে আগুন আমার ভাইপূজা
ওরে আমার হৃদয় আমারপ্রেম
ওরে আয় রে তবে মাত্‌ রে সবে আনন্দেপ্রকৃতি
ওরে ওরে ওরে, আমার মন মেতেছেবিচিত্র
ওরে কী শুনেছিস ঘুমের ঘোরেপ্রেম
ওরে কে রে এমন জাগায় তোকেপূজা
ওরে গৃহবাসী, খোল্ দ্বার খোল্প্রকৃতি
ওরে চিত্ররেখাডোরে বাঁধিল কেপ্রেম
ওরে জাগায়ো না ও যে বিরাম মাগেপ্রেম
ওরে তোরা নেই বা কথা বললিস্বদেশ
ওরে তোরা নেই বা কথা বললিস্বদেশ
ওরে তোরা যারা শুনবি নাপূজা
ওরে নূতন যুগের ভোরেস্বদেশ
ওরে পথিক, ওরে প্রেমিকপূজা
ওরে পাষানীচণ্ডালিকা
ওরে প্রজাপতি মায়া দিয়ে কে যেবিচিত্র
ওরে বকুল, পারুলপ্রকৃতি
ওরে বাছা এখনি অধীরচণ্ডালিকা
ওরে বাছা দেখতে পারি নে তোর দুঃখচণ্ডালিকা
ওরে ভাই, ফাগুন লেগেছে বনে বনেপ্রকৃতি
ওরে ভাই, মিথ্যা ভেবো নাজাতীয় সংগীত
ওরে ভীরু তোমার হাতে নাই ভুবনের ভারপূজা
ওরে মাঝি ওরে আমার মানবজন্মতরীর মাঝিবিচিত্র
ওরে যেতে হবে যেতে হবে রেবিচিত্র
ওরে শিকল তোমায় কোলে করেবিচিত্র
ওরে সর্বনাশীচণ্ডালিকা
ওরে সাবধানী পথিক বারেক পথ ভুলেবিচিত্র
ওলো রেখে দে সখীপ্রেম
ওলো শেফালি ওলো শেফালিপ্রকৃতি
ওলো সই ওলো সই আমার ইচ্ছা করেপ্রেম
ওহে জীবনবল্লভপূজা ও প্রার্থনা
ওহে দয়াময় নিখিল আশ্রয়পরিশিষ্ট
ওহে নবীন অতিথি তুমি নূতনআনুষ্ঠানিক
ওহে সুন্দর মম, গৃহে আজিপ্রেম
ওহে সুন্দর মরি মরিপূজা
কখন দিলে পরায়ে স্বপনে বরণমালাপ্রেম
কখন বাদল ছোঁওয়া লেগেপ্রকৃতি
কখন যে বসন্ত গেলপ্রেম
কঠিন বেদনার তাপস দোঁহেপ্রেম
কঠিন লোহা কঠিন ঘুমে ছিল অচেতনবিচিত্র
কত অজানারে জানাইলে তুমিপূজা
কত কথা তারে ছিল বলিতেপ্রেম
কত কাল রবে বল' ভারত রেনাট্যগীতি
কত ডেকে ডেকে জাগাইছ মোরেপরিশিষ্ট
কত দিন একসাথে ছিনু ঘুমঘোরেনাট্যগীতি
কত যে তুমি মনোহরপ্রকৃতি
কতবার ভেবেছিনুপূজা
কথা কোস্‌ নে লো রাইনাট্যগীতি
কদম্বেরই কানন ঘেরি আষাঢ়মেঘের ছায়া খেলেপ্রকৃতি
কবরীতে ফুল শুকালোনাট্যগীতি
কবে আমি বাহির হলেমপূজা
কবে তুমি আসবে বলে রইব না বসেপ্রেম
কমলবনের মধুপরাজিবিচিত্র
কহো কহো মোরে প্রিয়েশ্যামা
কাঁটাবনবিহারিণী সুর কানা দেবীবিচিত্র
কাঁদার সময় অল্প ওরেপ্রেম
কাঁদালে তুমি মোরে ভালোবাসারইপ্রেম
কাঁদিতে হবে রেশ্যামা
কাঁপিছে দেহলতা থরথরপ্রকৃতি
কাছে আছে দেখিতে না পাওপ্রেম
কাছে ছিলে দূরে গেল দূর হতে এস কাছেমায়ার খেলা
কাছে ছিলে দূরে গেলেপ্রেম ও প্রকৃতি
কাছে তার যাই যদিনাট্যগীতি
কাছে থেকে দূর রচিল কেন গো আঁধারেপ্রেম
কাছে যবে ছিল পাশেপ্রেম
কাজ নেই কাজ নেই মাচণ্ডালিকা
কাজ ভোলাবার কে গো তোরানাট্যগীতি
কান্নাহাসির দোল দোলানো পৌষ ফাগুনের পালাপূজা
কামনা করি একান্তেপূজা
কার চোখের চাওয়ার হাওয়ায় দোলায় মনপ্রেম
কার বাঁশি নিশিভোরে বাজিল মোর প্রাণেপ্রকৃতি
কার মিলন চাও বিরহীপূজা
কার যেন এই মনের বেদনপ্রকৃতি
কার হাতে এই মালা তোমার পাঠালেপূজা
কার হাতে যে ধরা দেব প্রাণনাট্যগীতি
কার হাতে যে ধরা দেব হায়প্রেম ও প্রকৃতি
কাল রাতের বেলা গান এল মোর মনেপ্রেম
কাল সকালে উঠব মোরাকালমৃগয়া
কালী কালী বলো রে আজবাল্মীকি প্রতিভা
কালো মেঘের ঘটা ঘনায় রেপ্রেম ও প্রকৃতি
কাহার গলায় পরাবি গানের রতনহারপ্রেম
কাহারে হেরিলাম আহাচিত্রাঙ্গদা
কি আছে তোমার পেটিকায়শ্যামা
কিছু বলব ব'লে এসেছিলেমপ্রকৃতি
কিছুই তো হল নানাট্যগীতি
কিসের ডাক তোর কিসের ডাকচণ্ডালিকা
কী কথা বলিস তুইচণ্ডালিকা
কী করিনু হায় কালমৃগয়া
কী করিব বলো, সখানাট্যগীতি
কী করিলি মোহের ছলনেপূজা ও প্রার্থনা
কী করিয়া সাধিলে অসাধ্য ব্রতশ্যামা
কী গাব আমি কী শুনাবপূজা
কী ঘোর নিশীথ নীরব ধরাকালমৃগয়া
কী জানি কী ভেবেছ মনেনাট্যগীতি
কী দিব তোমায়পূজা ও প্রার্থনা
কী দোষ করেছি তোমারকালমৃগয়া
কী দোষে বাঁধিলে আমায়বাল্মীকি প্রতিভা
কী ধ্বনি বাজেপ্রেম ও প্রকৃতি
কী পাই নি তারি হিসাব মিলাতেবিচিত্র
কী ফুল ঝরিল বিপুল অন্ধকারে প্রেম
কী বলিনু আমিবাল্মীকি প্রতিভা
কী বলিলে কী শুনিলামকালমৃগয়া
কী বেদনা মোর জানোপ্রেম ও প্রকৃতি
কী ভাবিছ নাথ
কী ভয় অভয়ধামে তুমি মহারাজাপূজা
কী যে ভাবিস তুই অন্যমনেচণ্ডালিকা
কী রাগিণী বাজালে হৃদয়েপ্রেম
কী সুর বাজে আমার প্রাণেপ্রেম
কী হল আমার বুঝি বা সখীপ্রেম
কুসুমে কুসুমে চরণচিহ্নপ্রকৃতি
কূল থেকে মোর গানের তরীপূজা
কৃষ্ণকলি আমি তারেই বলিবিচিত্র
কে আমারে যেন এনেছে ডাকিয়াপ্রেম
কে উঠে ডাকি মম বক্ষোণীড়ে থাকিপ্রেম
কে এল আজি এ ঘোর নিশীথেবাল্মীকি প্রতিভা
কে এসে যায় ফিরে ফিরেজাতীয় সংগীত
কে গো অন্তরতর সেপূজা
কে জানিত তুমি ডাকিবে আমারেপূজা ও প্রার্থনা
কে জানে কোথা সেকালমৃগয়া
কে ডাকে আমি কভু ফিরে নাহিপ্রেম
কে তুমি গো খুলিয়াছ স্বর্গের দুয়ারনাট্যগীতি
কে দিল আবার আঘাত আমারপ্রেম
কে দেবে চাঁদ তোমায় দোলাপ্রকৃতি
কে বলে যাও যাওপ্রেম
কে বলেছে তোমায় বধুপ্রেম
কে বসিলে আজি হৃদয়াসনেপূজা
কে যায় অমৃতধামযাত্রীপূজা
কে যেতেছিস আয় রে হেথাপ্রেম ও প্রকৃতি
কে রে ওই ডাকিছেপূজা
কেটেছে একেলা বিরহের বেলাপ্রেম
কেন জাগে না জাগে না অবশ পরানপূজা
কেন পান্থ এ চঞ্চলতাপ্রকৃতি
কেন আমায় পাগল করে যাসপ্রেম
কেন আর মিথ্যে আশা বারে বারে
কেন এলি কেন এলিশ্যামা
কেন এলি রে ভালোবাসিলিমায়ার খেলা
কেন গো আপন মনে ভ্রমিছ বনে বনেবাল্মীকি প্রতিভা
কেন গো সে মোরে যেন করে না বিশ্বাসপ্রেম ও প্রকৃতি
কেন চেয়ে আছ গো মা মুখপানেজাতীয় সংগীত
কেন চোখের জলে ভিজিয়ে দিলেম নাপূজা
কেন তোমরা আমায় ডাকোপূজা
কেন ধরে রাখা ও যে যাবে চলেপ্রেম
কেন নিবে গেল বাতিনাট্যগীতি
কেন নয়ন আপনি ভেসে যায় জলেপ্রেম
কেন বাজাও কাঁকন কনকন কত ছলভরেপ্রেম
কেন বাণী তব নাহি শুনি নাথ হেপূজা
কেন যামিনী না যেতে জাগালে নাপ্রেম
কেন যে মন ভোলে আমার মন জানে নাবিচিত্র
কেন রাজা ডাকিস কেনবাল্মীকি প্রতিভা
কেন রে এই দুয়ারটুকুপূজা
কেন রে এতই যাবার ত্বরাপ্রেম
কেন রে ক্লান্তি আসে আবেশভার বহিয়াচিত্রাঙ্গদা
কেন রে চাস ফিরে ফিরেনাট্যগীতি
কেন সারাদিন ধীরে ধীরেপ্রেম
কেমনে ফিরিয়া যাও না দেখি তাঁহারেপূজা
কেমনে রাখিবি তোরা তাঁরেপূজা
কেমনে শুধিব বলো তোমার এ ঋণপ্রেম ও প্রকৃতি
কেহ কারো মন বুঝে নাপ্রেম
কোথা আছ প্রভু এসেছি দীনহীনপূজা ও প্রার্থনা
কোথা ছিলি সজনী লোনাট্যগীতি
কোথা বাহিরে দূরে যায় রে উড়েপ্রেম
কোথা যে উধাও হল মোর প্রাণ উদাসীপ্রকৃতি
কোথা লুকাইলেবাল্মীকি প্রতিভা
কোথা হতে বাজে প্রেমবেদনা রেপূজা
কোথা হতে শুনতে যেন পাইপ্রেম
কোথাও আমার হারিয়ে যাওয়ারপূজা
কোথায় আলো কোথায় ওরে আলোপূজা
কোথায় জুড়াতে আছে ঠাঁইবাল্মীকি প্রতিভা
কোথায় তুমি আমি কোথায়পূজা
কোথায় ফিরিস পরম শেষের অন্বেষণেবিচিত্র
কোথায় সে উষাময়ী প্রতিমাবাল্মীকি প্রতিভা
কোন্‌ অপরূপ স্বর্গের আলোশ্যামা
কোন্‌ অযাচিত আশার আলোপ্রেম
কোন্‌ আলোতে প্রানের প্রদীপপূজা
কোন্‌ খেপা শ্রাবণ ছুটে এলপ্রকৃতি
কোন্‌ খেলা যে খেলব কখন্‌পূজা
কোন্‌ গহন অরণ্যে তারে এলেম হারায়েপ্রেম
কোন্‌ ছলনা এ যে নিয়েছে আকারচিত্রাঙ্গদা
কোন্‌ দেবতা সে কী পরিহাসেপ্রেম
কোন্‌ পুরাতন প্রাণের টানেপ্রকৃতি
কোন্‌ বাঁধনের গ্রন্থি বাঁধিলপ্রেম
কোন্‌ ভীরুকে ভয় দেখাবিপূজা ও প্রার্থনা
কোন্‌ শুভখনে উদিবে নয়নেপূজা
কোন্‌ সুদূর হতে আমার মনোমাঝেবিচিত্র
কোন্‌ সে ঝড়ের ভুলপ্রেম
কোলাহল তো বারণ হলপূজা
ক্লান্ত বাঁশির শেষ রাগিণীপ্রেম
ক্লান্ত যখন আম্রকলির কালপ্রকৃতি
ক্লান্তি আমার ক্ষমা করো প্রভুপূজা
ক্ষণে ক্ষণে মনে মনে শুনিপ্রেম ও প্রকৃতি
ক্ষত যত ক্ষতি যত মিছে হতেপূজা
ক্ষমা করো আমায়চিত্রাঙ্গদা
ক্ষমা করো প্রভু ক্ষমা করো মোরেচণ্ডালিকা
ক্ষমা করো মোরে তাতকালমৃগয়া
ক্ষমা করো মোরে সখীনাট্যগীতি
ক্ষমিতে পারিলাম না যেশ্যামা
ক্ষুধার্ত প্রেম, তার নাই দয়াচণ্ডালিকা
খরবায়ু বয় বেগেবিচিত্র
খাঁচার পাখি ছিল সোনার খাঁচাটিতেনাট্যগীতি
খুলে দে তরণী খুলে দে তোরাপ্রেম ও প্রকৃতি
খেপা তুই আছিস আপন খেয়াল ধরেস্বদেশ
খেলা কর্‌ খেলা কর্‌ তোরানাট্যগীতি
খেলাঘর বাঁধতে লেগেছি আমার মনের ভিতরেবিচিত্র
খেলার ছলে সাজিয়ে আমার পূজা
খেলার সাথি বিদায়দ্বার খোলোপূজা ও প্রার্থনা
খোলো খোলো দ্বার রাখিয়ো না আরপ্রেম
খোলো, খোলো বৃথা কোরো নাশ্যামা
গগনে গগনে আপনার মনেপ্রকৃতি
গগনে গগনে ধায় হাঁকিবিচিত্র
গগনের থালে রবি চন্দ্রপূজা ও প্রার্থনা
গন্ধরেখার পন্থে তোমার শূন্যে গতিপ্রেম ও প্রকৃতি
গভীর রজনী নামিল হৃদয়েপূজা
গভীর রাতে ভক্তিভরে কে জাগেপূজা ও প্রার্থনা
গরব মম হরেছ, প্রভু, দিয়েছ বহু লাজপূজা
গহন কুসুমকুঞ্জ-মাঝে মৃদুল মধুর বংশি বাজেভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
গহন ঘন ছাইল গগন ঘনাইয়াপ্রকৃতি
গহন ঘন বনেপ্রেম
গহন রাতে শ্রাবণধারা পড়িছে ঝরেপ্রকৃতি
গহনে গহনে যা রে তোরাবাল্মীকি প্রতিভা
গা সখী, গাইলি যদিপ্রেম ও প্রকৃতি
গাও বীণা বীণা গাও রেপূজা
গান আমার যায় ভেসে যায়প্রেম
গানগুলি মোর শৈবালেরি দলপ্রেম
গানে গানে তব বন্ধনপূজা
গানের ঝর্‌নাতলায় তুমি পূজা
গানের ডালি ভরে দে গো উষার কোলেপ্রেম
গানের ভিতর দিয়ে যখনপূজা
গানের ভেলায় বেলা অবেলায়প্রেম
গানের সুরের আসনখানিপূজা
গাব তোমার সুরে দাও সে বীণাযন্ত্রপূজা
গায়ে আমার পুলক লাগেপূজা
গিয়াছে সে দিন যে দিন হৃদয় রূপেরই মোহনে আছিল প্রেম ও প্রকৃতি
গুরু গুরু গুরু গুরু ঘন মেঘ গরজে পর্বতশিখরেচিত্রাঙ্গদা
গুরুপদে মন করো অর্পননাট্যগীতি
গেল গেল নিয়ে গেল এ প্রণয়স্রোতেপ্রেম ও প্রকৃতি
গেল গো ফিরিল না চাহিল নাপ্রেম
গোধূলীগগনে মেঘে ঢেকেছিলপ্রেম
গোপন কথাটি রবে না গোপনেপ্রেম
গোপন প্রাণে একলা মানুষ যেবিচিত্র
গোলাপ ফুল ফুটিয়ে আছেপ্রেম ও প্রকৃতি
গ্রাম ছাড়া ঐ রাঙামাটির পথবিচিত্র
ঘন কালো মেঘ তাঁর পিছনেচণ্ডালিকা
ঘরেতে ভ্রমর এলো গুনগুনিয়েপ্রেম
ঘাটে বসে আছি আনমনা যেতেছে বহিয়া সুসময়পূজা
ঘুমের ঘন গহন হতে যেমন আসে স্বপ্নপ্রেম
ঘোর দুঃখে জাগিনুপূজা
ঘোরা রজনী, এ মোহঘনঘটাপূজা ও প্রার্থনা
চক্ষে আমার তৃষ্ণাচণ্ডালিকা
চপল তব নবীন আঁখি দুটিপ্রেম
চরণ ধরিতে দিয়ো গো আমারেপূজা
চরণধ্বনি শুনি তব নাথপূজা
চরণরেখা তব যে পথে দিলে লেখিপ্রেম ও প্রকৃতি
চরাচর সকলই মিছে প্রেম ও প্রকৃতি
চলি গো চলি গো যাই গো চলেপূজা
চলিয়াছি গৃহপানেপূজা ও প্রার্থনা
চলে ছলোছলোপ্রকৃতি
চলে যাবি এই যদি তোর প্রেম ও প্রকৃতি
চলে যায় মরি হায় বসন্তের দিনপ্রকৃতি
চলেছে ছুটিয়া পলাতকা হিয়ানাট্যগীতি
চলেছে তরণী প্রসাদপবনেপূজা ও প্রার্থনা
চলো চলো চলো চলোপরিশিষ্ট
চলো নিয়ম মতে দূরে তাকিয়ো নাকোনাট্যগীতি
চলো যাই চলো যাই চলোস্বদেশ
চল্‌ চল্‌ ভাই ত্বরা করে মোরাবাল্মীকি প্রতিভা
চাঁদ হাসো হাসো হারা হৃদয় দুটিমায়ার খেলা
চাঁদের হাসির বাঁধ ভেঙ্গেছেপ্রেম
চাহি না সুখে থাকিতে হেপূজা ও প্রার্থনা
চাহিয়া দেখো রসের স্রোতেবিচিত্র
চিঁড়েতন হর্তন ইস্কাবননাট্যগীতি
চিত্ত আমার হারালো আজপ্রকৃতি
চিত্ত পিপাসিত রেপ্রেম
চিত্রাঙ্গদা রাজকুমারীচিত্রাঙ্গদা
চিনিলে না আমারে কিপ্রেম
চির-পুরানো চাঁদনাট্যগীতি
চিরদিবস নব মাধুরী নব শোভাপূজা
চিরবন্ধু চিরনির্ভর চিরশান্তিপূজা
চিরসখা, ছেড়ো না মোরে পূজা
চুপ করো দূরে যাওশ্যামা
চুরি হয়ে গেছে রাজকোষেশ্যামা
চেনা ফুলের গন্ধস্রোতেপ্রকৃতি
চৈত্রপবনে মম চিত্তবনেপ্রেম
চোখ যে ওদের ছুটে চলে গোবিচিত্র
চোখের আলোয় দেখেছিলেমপূজা
ছায়া ঘনাইয়েছে বনে বনেপূজা
ছাড়ব না ভাই ছাড়ব নাবাল্মীকি প্রতিভা
ছাড়িব না ছাড়িব নাশ্যামা
ছাড়্‌ গো তোরা ছাড়্‌ গোপ্রকৃতি
ছি ছি কুৎসিত কুরূপ সেচণ্ডালিকা
ছি ছি চোখের জলে ভেজাস নেস্বদেশ
ছি ছি মরি লাজেপ্রেম
ছি ছি সখা কী করিলে কোন্‌ প্রাণে পরশিলেপরিশিষ্ট
ছিন্ন পাতার সাজাই তরণীপূজা
ছিন্ন শিকল পায়ে নিয়ে প্রেম
ছিল যে পরানের অন্ধকারেবিচিত্র
ছিলে কোথা বলোপরিশিষ্ট
ছুটির বাঁশি বাজল যেপ্রেম
জগত জুড়ে উদার সুরে আনন্দগানপূজা
জগতে আনন্দযজ্ঞে আমার নিমন্ত্রণপূজা
জগতে তুমি রাজা অসীম প্রতাপপূজা
জগতের পুরোহিত তুমিআনুষ্ঠানিক সংগীত
জনগণমন-অধিনায়ক জয় হে ভারতভাগ্যবিধাতাস্বদেশ
জননী তোমার করুণ চরণখানিপূজা
জননীর দ্বারে আজি ওই শুন গোস্বদেশ
জরোজরো প্রাণে নাথ বরিষণ করোপূজা
জল এনে দে রে বাছাকালমৃগয়া
জল দাও আমায় জল দাওচণ্ডালিকা
জলে ডোবা চিকন শ্যামলপ্রেম ও প্রকৃতি
জাগ আলসশয়নবিলগ্নবিচিত্র
জাগ আলসশয়নবিলগ্ন জাগবিচিত্র
জাগ জাগ রে জাগ সঙ্গীতপূজা
জাগরণে যায় বিভাবরীপ্রেম
জাগিতে হবে রেপূজা
জাগে নাথ জোছনারাতেপূজা
জাগে নি এখনো জাগে নিচণ্ডালিকা
জাগো নির্মল নেত্রে রাত্রির পরপারেপূজা
জাগো হে রুদ্র জাগোপূজা
জাগো হে রুদ্র, জাগোপূজা
জাগ্রত বিশ্বকোলাহল-মাঝেপূজা
জানি গো দিন যাবে এ দিন যাবেপূজা
জানি জানি এসেছ এ পথে মনের ভুলেপ্রেম ও প্রকৃতি
জানি জানি কোন্‌ আদি কাল হতেপূজা
জানি জানি তাই তো আমিশ্যামা
জানি জানি তুমি এসেছ এ পথেপ্রেম
জানি জানি তোমার প্রেমেপূজা
জানি জানি হল যাবার আয়োজনপ্রেম
জানি তুমি ফিরে আসিবে আবারপ্রেম
জানি তোমার অজানা নাহি গোপ্রেম
জানি নাই গো সাধন তোমার পূজা
জানি হে যবে প্রভাত হবে তোমার কৃপা তরণীপূজা
জীবন আমার চলছে যেমনবিচিত্র
জীবন যখন ছিল ফুলের মতোপূজা
জীবন যখন শুকায়ে যায়পূজা
জীবনমরণের সীমানা ছাড়ায়েপূজা
জীবনে আজ কি প্রথম এল বসন্তপ্রেম
জীবনে আমার যত আনন্দ পেয়েছিপূজা
জীবনে পরম লগন কোরো না হেলাপ্রেম
জীবনে যত পূজা হল না সারাপূজা
জীবনের কিছু হল না হায়বাল্মীকি প্রতিভা
জেনো প্রেম চিরঋণীপ্রেম
জ্বলে নি আলো অন্ধকারেপ্রেম
জ্বল্‌ জ্বল্‌ চিতা দ্বিগুণ দ্বিগুণনাট্যগীতি
জড়ায়ে আছে বাধা ছাড়ায়ে যেতে চাইপূজা
জয় করে তবু ভয় কেন তোর যায় নাপ্রেম
জয় জয় জয় হে জয় জ্যোতির্ময়নাট্যগীতি
জয় জয় তাসবংশ অবতংসনাট্যগীতি
জয় জয় পরমা নিষ্কৃতি হেপূজা
জয় তব বিচিত্র আনন্দ হে কবিপূজা
জয় তব হোক জয়আনুষ্ঠানিক সংগীত
জয় ভৈরব জয় শঙ্করপূজা
জয় রাজরাজেশ্বর জয় অরূপসুন্দরপূজা ও প্রার্থনা
জয় হোক জয় হোক নব অরুণোদয়পূজা
জয়তু জয় জয় রাজন্‌ বন্দি তোমারেকালমৃগয়া
জয়যাত্রায় যাও গো ওঠো জয়রথে তবপ্রেম
ঝম্‌ ঝম্‌ ঘন ঘন রে বরষেকালমৃগয়া
ঝর ঝর রক্ত ঝরে কাটা মুন্ডু বেয়েনাট্যগীতি
ঝরঝর বরিষে বারিধারাপ্রকৃতি
ঝরা পাতা গোপ্রকৃতি
ঝরো ঝরো ঝরো ঝরো ঝরেপ্রকৃতি
ঝরো ঝরো ঝরো ভাদরবাদরপ্রকৃতি
ঝাঁকড়া চুলের মেয়ের কথাপ্রেম ও প্রকৃতি
ঝড়ে যায় উড়ে যায় গোপ্রেম
ঠাকুরমশয় দেরি না সয়কালমৃগয়া
ডাকব না ডাকব নাপ্রেম
ডাকিছ কে তুমি তাপিত জনেপূজা
ডাকিছ শুনি জাগিনু প্রভুপূজা
ডাকিল মোরে জাগার সাথিপূজা
ডাকে বার বার ডাকেপূজা
ডাকো মোরে আজি এ নিশীথেপূজা
ডুবি অমৃতপাথারেপূজা
ডেকেছেন প্রিয়তম কে রহিবে ঘরেপূজা ও প্রার্থনা
ডেকো না আমারে ডেকো নাপ্রেম
ঢাকো রে মুখ চন্দ্রমা জলদেজাতীয় সংগীত
তপস্বীনি হে ধরনীপ্রকৃতি
তপের তাপের বাঁধন কাটুক রসের বর্ষণেপ্রকৃতি
তব অমল পরশরস তব শীতলপূজা
তব প্রেমসুধারসে মেতেছিপূজা ও প্রার্থনা
তব সিংহাসনের আসন হতে এলেপূজা
তবু ছাড়িবি নে মোরেশ্যামা
তবু পারি নে সঁপিতে প্রাণজাতীয় সংগীত
তবু মনে রেখোপ্রেম
তবে আয় সবে আয়বাল্মীকি প্রতিভা
তবে কি ফিরিব ম্লানমুখেপূজা ও প্রার্থনা
তবে শেষ করে দাও শেষ গানপ্রেম
তবে সুখে থাকো সুখে থাকোমায়ার খেলা
তরী আমার হঠাৎ ডুবে যায়বিচিত্র
তরীতে পা দিই নি আমিবিচিত্র
তরুণ প্রাতের অরুণ আকাশপ্রেম ও প্রকৃতি
তরুতলে ছিন্নবৃন্ত মালতীর ফুলনাট্যগীতি
তাঁহার অসীম মঙ্গললোক হতেআনুষ্ঠানিক সংগীত
তাঁহার আনন্দধারা জগতে যেতেছে বয়েপূজা ও প্রার্থনা
তাঁহার প্রেমে কে ডুবে আছেপূজা ও প্রার্থনা
তাঁহারে আরতি করে চন্দ্র তপনপূজা
তাই আমি দিনু বরচিত্রাঙ্গদা
তাই তোমার আনন্দ আমার পরপূজা
তাই হোক তবে তাই হোকচিত্রাঙ্গদা
তাকে আনতে যদি পারি
তার অন্ত নাই গো যে আনন্দে গড়াপূজা
তার বিদায়বেলার মালাখানি আমার গলেপ্রেম
তার হাতে ছিল হাসির ফুলের হারপ্রেম
তারে কেমনে ধরিবে সখীপ্রেম
তারে দেখাতে পারি নে কেন প্রাণপ্রেম
তারে দেহ গো আনি প্রেম ও প্রকৃতি
তারো তারো হরি দীনজনেপূজা ও প্রার্থনা
তিমির-অবগুন্ঠনে বদন তবপ্রকৃতি
তিমিরদুয়ার খোলো এসো এসোপূজা
তিমিরবিভাবরী কাটে কেমনেপূজা
তিমিরময় নিবিড় নিশাবিচিত্র
তুই আয় রে কাছে আয়কালমৃগয়া
তুই অবাক করি দিলি আমায়চণ্ডালিকা
তুই কেবল থাকিস সরে সরেপূজা
তুই ফেলে এসেছিস কারেপ্রেম
তুই রে বসন্তসমীরণনাট্যগীতি
তুমি অতিথি অতিথি আমারচিত্রাঙ্গদা
তুমি আছ কোন্‌ পাড়ানাট্যগীতি
তুমি আপনি জাগাও মোরেপূজা
তুমি আমাদের পিতাপূজা
তুমি আমায় করবে মস্ত লোকনাট্যগীতি
তুমি আমায় ডেকেছিলে ছুটির নিমন্ত্রণেপ্রেম
তুমি ইন্দ্রমণির হার এনেছ সুবর্ণদ্বীপ থেকেশ্যামা
তুমি উষার সোনার বিন্দুবিচিত্র
তুমি এ পার ও পার কর কে গোপূজা
তুমি একটু কেবল বসতে দিয়োপ্রেম
তুমি একলা ঘরে বসে বসেপূজা
তুমি এবার আমায় লহো হে নাথপূজা
তুমি কাছে নাই বলে হেরো সখাপূজা ও প্রার্থনা
তুমি কি এসেছ মোর দ্বারেপূজা
তুমি কি কেবলি ছবিবিচিত্র
তুমি কি গো পিতা আমাদেরপূজা ও প্রার্থনা
তুমি কিছু দিয়ে যাওপ্রেম
তুমি কে গো সখীরে কেন জানাও বাসনামায়ার খেলা
তুমি কেমন করে গান করোপূজা
তুমি কোন্‌ কাননের ফুলপ্রেম
তুমি কোন্‌ পথে যে এলেপ্রকৃতি
তুমি কোন্‌ ভাঙনের পথে এলেপ্রেম
তুমি খুশি থাকো আমার পানে চেয়েপূজা
তুমি ছেড়ে ছিলে ভুলে ছিলেপূজা
তুমি জাগিছ কেপূজা
তুমি জানো, ওগে অন্তর্যামীপূজা
তুমি ডাক দিয়েছ কোন সকালেপূজা
তুমি তো সেই যাবেই চ'লেপ্রেম ও প্রকৃতি
তুমি ধন্য ধন্য হেপূজা
তুমি নব নব রূপে এসোপূজা
তুমি পড়িতেছ হেসে তরঙ্গের মতোনাট্যগীতি
তুমি বন্ধু তুমি নাথ নিশিদিনপূজা
তুমি বাহির থেকে দিলে বিষম তাড়াপূজা
তুমি মোর পাও নাই পরিচয়প্রেম
তুমি যত ভার দিয়েছ সে ভারপূজা
তুমি যে আমারে চাওপূজা
তুমি যে এসেছ মোর ভবনেপূজা
তুমি যে চেয়ে আছ আকাশ ভরেপূজা
তুমি যে সুরের আগুন লাগিয়ে দিলেপূজা
তুমি যেয়ো না এখনিপ্রেম
তুমি রবে নীরবেপ্রেম
তুমি সন্ধ্যার মেঘমালাপ্রেম
তুমি সুন্দর যৌবনঘন রসময়পূজা
তুমি হঠাৎ-হাওয়ায় ভেসে-আসাপূজা
তুমি হে প্রেমের রবিআনুষ্ঠানিক সংগীত
তুমিই করেছ তবেশ্যামা
তুমিই করেছ তবে চুরিশ্যামা
তৃষ্ণার শান্তিচিত্রাঙ্গদা
তৃষ্ণার শান্তি সুন্দরকান্তিচিত্রাঙ্গদা
তোমরা যা বলো তাই বলোপ্রকৃতি
তোমরা হাসিয়া বহিয়া চলিয়া যাওবিচিত্র
তোমা লাগি নাথ জাগি জাগি হেপূজা
তোমা লাগি যা করেছিশ্যামা
তোমা হীন কাটে দিবস হে প্রভুপূজা
তোমাদের এ কী ভ্রান্তিশ্যামা
তোমাদের দান যশের ডালায়বিচিত্র
তোমার বাস কোথা যে পথিকপ্রকৃতি
তোমার মনের একটি কথা আমায় বলোপ্রেম
তোমার অসীমে প্রাণমন লয়ে যত দূরেপূজা
তোমার আনন্দ ওই গোপূজা
তোমার আমার এই বিরহের অন্তরালেপূজা
তোমার আসন পাতব কোথায়প্রকৃতি
তোমার আসন শূন্য আজিবিচিত্র
তোমার এই মাধুরী ছাপিয়ে আকাশ ঝরবেপূজা
তোমার কটিতটের ধটি কে দিল রাঙিয়ানাট্যগীতি
তোমার কথা হেথা কেহ তো বলে নাপূজা
তোমার কাছে এ বর মাগিপূজা
তোমার কাছে দোষ করি নাইশ্যামা
তোমার কাছে শান্তি চাব নাপূজা
তোমার খোলা হাওয়া লাগিয়ে পালেপূজা
তোমার গীতি জাগালো স্মৃতিপ্রেম
তোমার গোপন কথাটি সখীপ্রেম
তোমার দুয়ার খোলার ধ্বনি ওই গো বাজেপূজা
তোমার দেখা পাব বলে এসেছিপূজা
তোমার দ্বারে কেন আসিপূজা
তোমার নাম জানি নে সুর জানিপ্রকৃতি
তোমার নয়ন আমায় বারে বারেপূজা
তোমার পতাকা যারে দাওপূজা
তোমার পায়ের তলায় যেন গোপ্রেম
তোমার পূজার ছলে তোমায়পূজা
তোমার প্রেমে ধন্য কর যারেপূজা
তোমার প্রেমের বীর্যেশ্যামা
তোমার বীণা আমার মনমাঝেপূজা
তোমার বীণায় গান ছিল আরপ্রেম
তোমার বৈশাখ ছিল প্রখর রৌদ্রের জ্বালাপ্রেম
তোমার মোহন রূপে কে রয় ভুলেপ্রকৃতি
তোমার রঙিন পাতায় লিখব প্রাণেরপ্রেম
তোমার শেষের গানের রেশপ্রেম
তোমার সুর শুনায়ে যে ঘুম ভাঙাওপূজা
তোমার সুরের ধারা ঝরে যেথায়পূজা
তোমার সোনার থালায় সাজাব আজপূজা
তোমার হল শুরু আমার হল সারাবিচিত্র
তোমার হাতের অরুণলেখা পাবার লাগিপূজা
তোমার হাতের রাখীখানি বাঁধোপূজা
তোমারি ইচ্ছা হউক পূর্ণ করুণাময় স্বামীপূজা
তোমারি গেহে পালিছ স্নেহেপূজা
তোমারি ঝরনাতলার নির্জনেপূজা
তোমারি তরে, মা, সঁপিনু এ দেহজাতীয় সংগীত
তোমারি নাম বলব নানা ছলেপূজা
তোমারি নামে নয়ন মেলিনুপূজা
তোমারি মধুর রূপে ভরেছ ভুবনপূজা
তোমারি রাগিনী জীবনকুঞ্জে বাজেপূজা
তোমারি সেবক করো হে আজি হতে আমারেপূজা
তোমারে জানি নে হেপূজা ও প্রার্থনা
তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারাপ্রেম
তোমারেই প্রাণের আশা কহিবপূজা ও প্রার্থনা
তোমায় আমায় মিলন হবে বলেপূজা
তোমায় কিছু দেব বলেপূজা
তোমায় গান শোনাবপ্রেম
তোমায় চেয়ে আছি বসে পথের ধারেপূজা
তোমায় দেখে মনে লাগে ব্যথাশ্যামা
তোমায় নতুন করে পাব বলেপূজা
তোমায় যতনে রাখিব হে রাখিব কাছেপূজা ও প্রার্থনা
তোমায় সাজাব যতনে কুসুমে রতনেনাট্যগীতি
তোর অভিশাপ নিয়ে আশেচণ্ডালিকা
তোর আপন জনে ছাড়বে তোরেস্বদেশ
তোর প্রাণের রস তো শুকিয়ে গেলপ্রেম
তোর ভিতরে জাগিয়া কে পূজা
তোর শিকল আমায় বিকল করবে নাপূজা
তোর সাধনা কাহার জন্যে
তোরা বসে গাঁথিস মালাপ্রেম ও প্রকৃতি
তোরা যে যা বলিস ভাইপ্রেম
তোরা শুনিস নি কি শুনিস নিপূজা
তোলোন নামোন পিছন সামননাট্যগীতি
থাক তবে থাক এই মায়াচণ্ডালিকা
থাক তবে থাক তুই পড়ে
থাকতে আর তো পারলি নে মানাট্যগীতি
থামাও রিমিকি-ঝিমিকি বরিষনপ্রকৃতি
থামো থামো কোথায় চলেছ পালায়েশ্যামা
থাম্‌ থাম্‌ কী করিবি বধি পাখিটির প্রাণবাল্মীকি প্রতিভা
থাম্‌ রে থাম্‌ রে তোরা ছেড়ে দেশ্যামা
দই চাই গো দই চাইচণ্ডালিকা
দখিন হাওয়া জাগো জাগোপ্রকৃতি
দাঁড়াও আমার আঁখির আগেপূজা
দাঁড়াও কোথা চল তোমরাশ্যামা
দাঁড়াও কোথা চলো তোমরাশ্যামা
দাঁড়াও কোথা চলো তোমরা কেশ্যামা
দাঁড়াও মন অনন্ত ব্রহ্মান্ড মাঝেপূজা
দাঁড়াও মাথা খাও যেয়ো না সখাপ্রেম ও প্রকৃতি
দাঁড়িয়ে আছ তুমি আমার গানের ও পারেপূজা
দাও হে আমার ভয় ভেঙে দাওপূজা
দাও হে হৃদয় ভরে দাওপূজা ও প্রার্থনা
দারুণ অগ্নিবাণে রেপ্রকৃতি
দিন অবসান হল পূজা
দিন তো চলি গেল প্রভুপূজা ও প্রার্থনা
দিন পরে যায় দিন বসি পথপাশেপ্রেম
দিন ফুরালো হে সংসারীপূজা
দিন যদি হল অবসানপূজা
দিন যায় রে দিন যায় পূজা
দিনগুলি মোর সোনার খাঁচায় রইল নাবিচিত্র
দিনশেষে বসন্ত যা প্রাণে গেল বলেপ্রকৃতি
দিনশেষের রাঙা মুকুলপ্রেম
দিনশেষের রাঙা মুকুল জাগল চিতেপ্রেম
দিনান্তবেলায় শেষের ফসল নিলেমপ্রেম
দিনের পরে দিন যে গেল আঁধার ঘরেপ্রেম
দিনের বিচার করোআনুষ্ঠানিক
দিনের বেলায় বাঁশি তোমারপূজা
দিবসরজনী আমি যেন কারপ্রেম
দিবানিশি করিয়া যতন হৃদয়েতে রচেছি আসনপূজা ও প্রার্থনা
দিয়ে গেনু বসন্তের এই গানখানিপ্রেম
দীপ নিবে গেছে মম নিশীথসমীরেপ্রেম
দীর্ঘ জীবনপথ কত দুঃখতাপপূজা
দুঃখ এ নয় সুখ নহে গোপূজা ও প্রার্থনা
দুঃখ দিয়ে মেটাব দুঃখ তোমারপ্রেম
দুঃখ যদি না পাবে তোপূজা
দুঃখ যে তোর নয় রে চিরন্তনপূজা
দুঃখরাতে হে নাথ কে ডাকিলেপূজা
দুঃখের তিমিরে যদি জ্বলে পূজা
দুঃখের বরষায় চক্ষের পূজা
দুঃখের যজ্ঞ অনল জ্বলনেপ্রেম
দুই হাতে কালের মন্দিরা যে সদাই বাজেবিচিত্র
দুই হৃদয়ের নদী একত্র মিলিল যদিআনুষ্ঠানিক
দুইটি হৃদয়ে একটি আসন পাতিয়া বসোআনুষ্ঠানিক
দুখ দিয়েছ দিয়েছ ক্ষতি নাইপূজা
দুখ দূর করিলেপূজা ও প্রার্থনা
দুখের কথা তোমায় বলিব নাপূজা ও প্রার্থনা
দুখের বেশে এসেছ বলেপূজা
দুখের মিলন টুটিবার নয়মায়ার খেলা
দুজনে এক হয়ে যাওআনুষ্ঠানিক সংগীত
দুজনে দেখা হল মধুযামিনী রেপ্রেম ও প্রকৃতি
দুজনে যেথায় মিলিছে সেথায়আনুষ্ঠানিক
দুটি প্রাণ এক ঠাঁইআনুষ্ঠানিক
দুয়ার মোর পথপাশেবিচিত্র
দুয়ারে দাও মোরে রাখিয়াপূজা
দুয়ারে বসে আছি, প্রভুপূজা ও প্রার্থনা
দূর রজনীর স্বপন লাগে বিচিত্র
দূরদেশী সেই রাখাল ছেলেবিচিত্র
দূরে কোথায় দূরে দূরেপূজা
দূরে দাঁড়ায়ে আছে কেন আসে নামায়ার খেলা
দূরের বন্ধু সুরের দূতীরেপ্রেম
দে তোরা আমায় নূতন করে দেপ্রেম
দে পড়ে দে আমায় তোরা কী কথাপ্রেম
দে লো সখী দে পরাইয়ে গলেমায়ার খেলা
দেওয়া নেওয়া ফিরিয়ে দেওয়া পূজা
দেখব কে তোর কাছে আসেনাট্যগীতি
দেখা না দেখায় মেশা হে বিদ্যুৎলতাবিচিত্র
দেখা যদি দিলে ছেড়ো না আরপূজা ও প্রার্থনা
দেখায়ে দে কোথা আছে একটু বিরলপ্রেম ও প্রকৃতি
দেখে যা দেখে যা দেখে যা লোপ্রেম
দেখো ওই কে এসেছে চাও সখীনাট্যগীতি
দেখো চেয়ে দেখো ঐ কে আসিছেমায়ার খেলা
দেখো চেয়ে দেখো ওই কে আসিছেমায়ার খেলা
দেখো দেখো দেখো শুকতারা আঁখিপ্রকৃতি
দেখো হো ঠাকুর বলি এনেছি মোরাবাল্মীকি প্রতিভা
দেখো, সখা, ভুল করেমায়ার খেলা
দেখ্‌ চেয়ে দেখ্‌ তোরা জগতের উৎসবপূজা ও প্রার্থনা
দেখ্‌ দেখ্‌ দুটো পাখি বসেছে গাছেবাল্মীকি প্রতিভা
দেবতা জেনে দূরে রই দাঁড়ায়েপূজা
দেবাধিদেব মহাদেবপূজা
দেশ দেশ নন্দিত করি মন্দ্রিতস্বদেশ
দেশে দেশে ভ্রমি তব দুখগান গাহিয়েজাতীয় সংগীত
দৈবে তুমি কখন প্রেম
দৈবে তুমি কখন নেশায় পেয়েপ্রেম
দোলে প্রেমের দোলন-চাঁপা হৃদয়-আকাশেপ্রকৃতি
দোষী করিব না করিব না তোমারেপ্রেম
দ্বারে কেন দিলে নাড়াপ্রেম
দয়া করো, দয়া করো প্রভুনাট্যগীতি
দয়া দিয়ে হবে গো মোরপূজা
ধনে জনে আছি জড়ায়ে হায়পূজা
ধরণী দূরে চেয়ে কেন আজপ্রকৃতি
ধরণীর গগনের মিলনের ছন্দেপ্রকৃতি
ধরা দিয়েছি গোপ্রেম
ধরা সে যে দেয় নাইপ্রেম
ধর্‌ ধর্‌ ওই চোরশ্যামা
ধর্‌ ধর্‌ ওই চোর ওই চোরশ্যামা
ধায় যেন মোর সকল ভালোবাসাপূজা
ধিক্‌ ধিক্‌ ওরে মুগ্ধশ্যামা
ধীরে ধীরে ধীরে বওপ্রকৃতি
ধীরে ধীরে প্রাণে আমারনাট্যগীতি
ধীরে বন্ধু গো ধীরে ধীরেপূজা
ধূসর জীবনের গোধূলিতেপ্রেম
ধূসর জীবনের গোধূলিতে ক্লান্ত আলোয়প্রেম
ধ্বনিল আহবান মধুর গম্ভীরপূজা
নই আমি নই চোরশ্যামা
নদীপারের এই আষাঢ়ের প্রভাতখানিপূজা
নব আনন্দে জাগো আজিপূজা
নব কুন্দধবলদলসুশীতলাপ্রকৃতি
নব নব পল্লবরাজিপ্রকৃতি
নব বসন্তের দানের ডালি এনেছিচণ্ডালিকা
নবজীবনের যাত্রাপথে দাওআনুষ্ঠানিক সংগীত
নমি নমি চরণে নমি কলুষহরণেপূজা
নমি নমি ভারতী তব কমলচরণেবাল্মীকি প্রতিভা
নমো নমো নমো করুণাঘনপ্রকৃতি
নমো নমো নমো তুমি ক্ষুধার্তজনশরণ্যপ্রকৃতি
নমো নমো নমো নমো তুমি সুন্দরতমপ্রকৃতি
নমো নমো নমো নমো নির্দয় অতিপ্রকৃতি
নমো নমো শচীচিতরঞ্জননাট্যগীতি
নমো নমো হে বৈরাগীপ্রকৃতি
নমো যন্ত্র নমো যন্ত্রআনুষ্ঠানিক সংগীত
নহ মাতা, নহ কন্যানাট্যগীতি
নহে নহে এ নহে কৌতুকশ্যামা
নহে নহে নহে সে কথা এখনো নহেশ্যামা
না কিছুই থাকবে নাচণ্ডালিকা
না গো এই যে ধুলা আমার না এবিচিত্র
না চাহিলে যারে পাওয়া য়ায়প্রেম
না জানি কোথা এলুমকালমৃগয়া
না দেখব না আমি দেখব নাচণ্ডালিকা
না না কাজ নাই যেয়ো না বাছাকালমৃগয়া
না না না বন্ধুশ্যামা
না না না সখী ভয় নেইচিত্রাঙ্গদা
না বলে যায় পাছে সেপ্রেম
না বলে যেয়ো না চলেপ্রেম
না বাঁচাবে আমায় যদিপূজা
না বুঝে কারে তুমি ভাসালে আঁখিজলেপ্রেম
না রে হবে না তোর স্বর্গসাধনপূজা
না সখা মনের ব্যথা কোরো নানাট্যগীতি
না সজনী না আমি জানি জানিপরিশিষ্ট
না, না গো না,প্রেম
না, যেয়ো না, যেয়ো নাকোপ্রকৃতি
নাই নাই নাই যে বাকি সময় আমারপ্রেম
নাই নাই ভয়,হবে হবে জয়,স্বদেশ
নাই বা এলে যদি সময় নাইপ্রেম
নাই বা ডাকো রইব তোমার দ্বারেপূজা
নাই ভয়, নাই ভয়, নাই ভয় বিচিত্র
নাই যদি বা এলে তুমিপ্রেম
নাই রস নাইপ্রকৃতি
নাচ্‌ শ্যামা তালে তালেনাট্যগীতি
নাথ হে, প্রেমপথে সব বাধা ভাঙিয়া দাওপূজা
নাম লহো দেবতারশ্যামা
নারীর ললিত লোভন লীলায়প্রেম
নাহয় তোমার যা হয়েছে তাই হলবিচিত্র
নিকটে দেখিব তোমারে করেছি বাসনাপূজা
নিত্য তোমার যে ফুল ফোটেপূজা
নিত্য নব সত্য তব শুভ্র আলোকময়পূজা
নিত্য সত্যে চিন্তন করোপরিশিষ্ট
নিদ্রাহারা রাতের এ গানপ্রেম
নিবিড় অন্তরতর বসন্ত এল প্রাণেপ্রকৃতি
নিবিড় অমা তিমির হতেপ্রকৃতি
নিবিড় ঘন আঁধারে জ্বলিছে ধ্রুবতারাপূজা
নিবিড় মেঘের ছায়ায় মন দিয়েছি মেলেপ্রকৃতি
নিভৃত প্রাণের দেবতাপূজা
নিমিষের তরে শরমে বাধিলপ্রেম
নির্জন রাতে নিঃশব্দ চরণপাতেপ্রেম ও প্রকৃতি
নির্দোষী বিদেশীর রাখোশ্যামা
নির্দোষী বিদেশীর রাখো প্রাণশ্যামা
নির্মল কান্ত, নমো হে নমোপ্রকৃতি
নিশা অবসানে কে দিল গোপনে আনিপূজা
নিশার স্বপন ছুটল রে এই ছুটল রেপূজা
নিশি না পোহাতে জীবনপ্রদীপপ্রেম
নিশিদিন চাহো রে তাঁর পানেপূজা
নিশিদিন ভরসা রাখিস ওরে মনস্বদেশ
নিশিদিন মোর পরানে প্রিয়তম মমপূজা
নিশীথরাতের প্রাণপ্রকৃতি
নিশীথশয়নে ভেবে রাখি মনেপূজা
নিশীথে কী কয়ে গেল মনেপ্রেম
নিয়ে আয় কৃপাণবাল্মীকি প্রতিভা
নীরব রজনী দেখো মগ্ন জোছনায়নাট্যগীতি
নীরবে আছ কেন বাহিরদুয়ারেপূজা
নীরবে থাকিস সখী ও তুইপ্রেম
নীল আকাশের কোণে কোণেপ্রকৃতি
নীল দিগন্তে ওই ফুলের আগুন লাগলপ্রকৃতি
নীল নবঘনে আষাঢ়গগনেপ্রকৃতি
নীল- অঞ্জনঘন পুঞ্জছায়ায়প্রকৃতি
নীলাঞ্জনছায়াপ্রকৃতি
নূতন পথের পথিক হয়ে আসেনাট্যগীতি
নূতন প্রাণ দাও প্রাণসখা আজি সুপ্রভাতেআনুষ্ঠানিক সংগীত
নূপুর বেজে যায় রিনিরিনিপ্রেম
নৃত্যের তালে তালে নটরাজবিচিত্র
নেহারো লো সহচরীকালমৃগয়া
ন্যায় অন্যায় জানি নেশ্যামা
নয় নয় এ মধুর খেলাপূজা
নয়ন ছেড়ে গেলে চলেপূজা
নয়ন তোমার পায়না দেখিতেপূজা ও প্রার্থনা
নয়ন মেলে দেখি আমায়প্রেম
নয়ান ভাসিল জলেপূজা
পথ এখনো শেষ হল নাপূজা
পথ চেয়ে যে কেটে গেলপূজা
পথ দিয়ে কে যায় গো চলেপূজা
পথ ভুলেছিস সত্যি বটেবাল্মীকি প্রতিভা
পথহারা তুমি পথিক যেন গোপ্রেম
পথিক পরান চল্‌প্রেম
পথিক মেঘের দল জোটে ওইপ্রকৃতি
পথিক হে ওই যে চলেপূজা
পথিক হে ওই যে চলে ওই যে চলেপূজা
পথে চলে যেতে যেতেপূজা
পথে যেতে ডেকেছিলে মোরেপূজা
পথে যেতে তোমার সাথে মিলন হলনাট্যগীতি
পথের শেষ কোথায়পূজা
পরবাসী চলে এসো ঘরেবিচিত্র
পাখি আমার নীড়ের পাখিপ্রেম
পাখি তোর সুর ভুলিস নেপ্রেম ও প্রকৃতি
পাখি বলে চাঁপা আমারে কওবিচিত্র
পাগল যে তুই কন্ঠ ভরেবিচিত্র
পাগলা হাওয়ার বাদল-দিনেপ্রকৃতি
পাগলিনী তোর লাগি কী আমিপ্রেম ও প্রকৃতি
পাছে চেয়ে বসে আমার মননাট্যগীতি
পাছে সুর ভুলি এই ভয় হয়প্রেম
পাতার ভেলা ভাসাই নীরেপূজা
পাত্রখানা যায় যদি যাক ভেঙেচুরেপূজা
পাদপ্রান্তে রাখ সেবকেপূজা
পান্ডব আমি অর্জুন গান্ডীবধম্বাচিত্রাঙ্গদা
পান্থ এখনো কেন অলসিত অঙ্গপূজা
পান্থ তুমি, পান্থজনের সখা হেপূজা
পান্থপাখির রিক্ত কুলায় বনের গোপন ভালেপ্রেম
পারবি না কি যোগ দিতে এই ছন্দে রেপূজা
পায়ে পড়ি শোনো ভাই গাইয়েবিচিত্র
পিতার দুয়ারে দাঁড়াইয়া সবেপূজা ও প্রার্থনা
পিনাকেতে লাগে টঙ্কারপূজা
পিপাসা হায় নাহি মিটিলপূজা
পুব হাওয়াতে দেয় দোলা আজপ্রকৃতি
পুব-সাগরের পার হতে কোন্ এল পরবাসীপ্রকৃতি
পুরাতনকে বিদায় দিলে নাপ্রকৃতি
পুরানো জানিয়া চেয়োনা আমারেপ্রেম
পুরানো সেই দিনের কথাপ্রেম ও প্রকৃতি
পুরী হতে পালিয়েছেশ্যামা
পুরী হতে পালিয়েছে যে পুরসুন্দরীশ্যামা
পুরুষের বিদ্যা করেছিনু শিক্ষাচিত্রাঙ্গদা
পুষ্প দিয়ে মারো যারে পূজা
পুষ্প ফুটে কোন্‌ কুঞ্জবনেপ্রকৃতি
পুষ্পবনে পুষ্প নাহিপ্রেম
পূর্ণ প্রাণে চাবার যাহাপ্রেম
পূর্ণ-আনন্দ পূর্ণমঙ্গলরূপে হৃদয়ে এসোপূজা
পূর্ণচাঁদের মায়া আজি ভাবনা আমারপ্রকৃতি
পূর্বগগনভাগে দীপ্ত হইল সুপ্রভাতপূজা
পূর্বাচলের পানে তাকাইপ্রকৃতি
পেয়েছি অভয়পদ আর ভয় কারেপূজা
পেয়েছি ছুটি বিদায় দেহো ভাইআনুষ্ঠানিক সংগীত
পেয়েছি সন্ধান তব অন্তর্যামীপূজা
পোহালো পোহালো বিভাবরীপ্রকৃতি
পোড়া কপাল আমারচণ্ডালিকা
পোড়া মনে শুধু পোড়া মুখখানি জাগে রেনাট্যগীতি
পৌষ তোদের ডাক দিয়েছে আয়প্রকৃতি
প্রখর তপনতাপে আকাশ তৃষায় কাঁপেপ্রকৃতি
প্রচন্ড গর্জনে আসিল একি দুর্দিনপূজা
প্রতিদিন আমি হে জীবনস্বামীপূজা
প্রতিদিন তব গাঁথা গাব আমিপূজা
প্রথম আদি তব শক্তিপূজা
প্রথম আলোর চরণধ্বনিপূজা
প্রথম যুগের উদয়দিগঙ্গনেভূমিকা
প্রথম যুগের উদয়দিগঙ্গনে প্রথমভূমিকা
প্রভাত হইল নিশি কানন ঘুরেমায়ার খেলা
প্রভাত-আলোরে মোর কাঁদায়ে গেলেপ্রেম
প্রভাতে বিমল আনন্দে বিকশিতপূজা
প্রভু আজি তোমার দক্ষিণ হাতপূজা
প্রভু আমার প্রিয় আমারপূজা
প্রভু এলেম কোথায়পূজা ও প্রার্থনা
প্রভু এসেছ উদ্ধারিতে আমায়চণ্ডালিকা
প্রভু খেলেছি অনেক খেলা পূজা ও প্রার্থনা
প্রভু তোমা লাগি আঁখি জাগেপূজা
প্রভু বলো বলো কবেপূজা
প্রভু, তোমার বীণা যেমনি বাজেপূজা
প্রমোদে ঢালিয়া দিনু মননাট্যগীতি
প্রলয়নাচন নাচলে যখন আপন ভুলেবিচিত্র
প্রহরশেষের আলোয় রাঙা সেদিন চৈত্র মাসনাট্যগীতি
প্রহরী, ওগো প্রহরীশ্যামা
প্রাঙ্গণে মোর শিরীষশাখায়বিচিত্র
প্রাণ চায় চক্ষু না চায়প্রেম
প্রাণ নিয়ে তো সট্‌কেছিবাল্মীকি প্রতিভা
প্রাণ নিয়ে তো সট্‌কেছি রেকালমৃগয়া
প্রাণ ভরিয়ে তৃষা হরিয়েপূজা
প্রাণে খুশির তুফান উঠেছেপূজা
প্রাণে গান নাই মিছে তাই ফিরিনুপূজা
প্রাণের প্রাণ জাগিছে তোমারি প্রাণেপূজা
প্রিয়ে তোমার ঢেঁকি হলে যেতেম বেঁচেনাট্যগীতি
প্রেম এসেছিল নিঃশব্দচরণেপ্রেম ও প্রকৃতি
প্রেমপাশে ধরা পড়েছে দুজনেমায়ার খেলা
প্রেমানন্দে রাখো পূর্ণ আমারে দিবসরাতপূজা
প্রেমে প্রাণে গানে গন্ধেপূজা
প্রেমের জোয়ারে ভাসাবে দোঁহারেপ্রেম
প্রেমের ফাঁদ পাতা ভুবনে প্রেম
প্রেমের মিলনদিনে সত্য সাক্ষী যিনিআনুষ্ঠানিক সংগীত
পড়্ তুই সব চেয়ে নিষ্ঠুর মন্ত্রচণ্ডালিকা
ফল ফলাবার আশা আমিপ্রকৃতি
ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় করেছিপ্রকৃতি
ফাগুন-হাওয়ায় রঙে রঙে পাগল ঝোরাপ্রকৃতি
ফাগুনের নবীন আনন্দেপ্রকৃতি
ফাগুনের পূর্ণিমা এল কারপ্রকৃতি
ফাগুনের শুরু হতেই শুকনো পাতাপ্রকৃতি
ফিরবে না তা জানি তা জানিপ্রেম
ফিরায়ো না মুখখানিপ্রেম ও প্রকৃতি
ফিরে চল্‌, ফিরে চল্‌ মাটির টানেআনুষ্ঠানিক সংগীত
ফিরে ফিরে আমায় মিছে ডাকো স্বামীবিচিত্র
ফিরে ফিরে ডাক্‌ দেখি রে পরান খুলেপ্রেম
ফিরে যাও কেন ফিরে ফিরে যাওপ্রেম
ফিরো না ফিরো না আজি এসেছ দুয়ারেপূজা ও প্রার্থনা
ফুরালো ফুরালো এবার পরীক্ষার এই পালাবিচিত্র
ফুল তুলিতে ভুল করেছি প্রেমের সাধনেপ্রেম
ফুল বলে ধন্য আমি মাটির পরেপূজা
ফুলটি ঝরে গেছে রেপ্রেম ও প্রকৃতি
ফুলে ফুলে ঢোলে ঢোলেকালমৃগয়া
ফেলে রাখলেই কি পড়ে রবেপূজা
বঁধু মিছে রাগ কোরো নাপ্রেম ও প্রকৃতি
বঁধু, তোমায় করব রাজাপ্রেম
বঁধুর লাগি কেশে আমিনাট্যগীতি
বঁধুয়া হিয়া পর আও রেভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
বঁধুয়া, অসময়ে কেন হে প্রকাশনাট্যগীতি
বকুলগন্ধে বন্যা এল দখিন-হাওয়ার স্রোতেপ্রকৃতি
বজ্রমানিক দিয়ে গাঁথা আষাঢ়প্রকৃতি
বজ্রে তোমার বাজে বাঁশিপূজা
বড় আশা করে এসেছিপূজা ও প্রার্থনা
বধু কোন আলো লাগলো চোখেপূজা
বনে এমন ফুল ফুটেছেপ্রেম
বনে বনে সবে মিলে চলো হোকালমৃগয়া
বনে যদি ফুটল কুসুমপ্রেম
বন্দে মাতরম্‌
বন্ধু কিসের তরে অশ্রু ঝরেনাট্যগীতি
বন্ধু রহো রহো সাথেপ্রকৃতি
বরিষ ধরা-মাঝে শান্তির বারিপূজা
বর্ষ ওই গেল চলেপূজা ও প্রার্থনা
বর্ষ গেল, বৃথা গেলপূজা
বর্ষণমন্দ্রিত অন্ধকারে এসেছিপ্রেম
বল তো এইবারের মতোপূজা
বল দাও মোরে বল দাওপূজা
বলব কী আর বলব খুড়োবাল্মীকি প্রতিভা
বলি ও আমার গোলাপ-বালাপ্রেম ও প্রকৃতি
বলি গো সজনী, যেয়ো নাপ্রেম ও প্রকৃতি
বলে দাও জল দাও জলচণ্ডালিকা
বলেছিল ধরা দেব নানাট্যগীতি
বলো বলো পিতা কোথা সেকালমৃগয়া
বলো বলো বন্ধু বলোপূজা ও প্রার্থনা
বলো সখী বলো তারি নামপ্রেম
বল্ দেখি বাছাচণ্ডালিকা
বল্‌ গোলাপ মোরে বল্প্রেম
বসন্ত আওল রেভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
বসন্ত তার গান লিখে যায়প্রকৃতি
বসন্ত সে যায় তো হেসেপ্রেম
বসন্ত,তোর শেষ ক'রে দেপ্রকৃতি
বসন্তপ্রভাতে এক মালতীর ফুলনাট্যগীতি
বসন্তে আজ ধরার চিত্তপ্রকৃতি
বসন্তে কে শুধু কেবল ফোটা ফুলেরপ্রকৃতি
বসন্তে ফুল গাঁথলোপ্রকৃতি
বসন্তে বসন্তে তোমার কবিরেপ্রকৃতি
বসে আছি হে কবে শুনিবপূজা
বহু যুগের ও পার হতেপ্রকৃতি
বহে নিরন্তর অনন্ত আনন্দধারাপূজা
বাঁচান বাঁচি মারেন মরিপূজা
বাঁধন কেন ভূষণ-বেশেনাট্যগীতি
বাঁশরি বাজাতে চাহি বাঁশরি বাজিল কইপ্রেম
বাঁশি আমি বাজাই নি কিপ্রেম
বাংলার মাটি বাংলার জলস্বদেশ
বাকি আমি রাখব না কিছুইপ্রকৃতি
বাছা তুই যে আমার বুক চেরা ধনচণ্ডালিকা
বাছা মন্ত্র করেছে কে তোকেচণ্ডালিকা
বাছা মোর মন্ত্র আরচণ্ডালিকা
বাছা সহজ করে বল্‌ আমাকেচণ্ডালিকা
বাজাও আমারে বাজাওপূজা
বাজাও তুমি, কবি, তোমার পূজা
বাজাও রে মোহন বাঁশিভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
বাজিবে, সখী, বাঁশি বাজিবেপ্রেম
বাজিল কাহার বীণা মধুর স্বরেপ্রেম
বাজে করুণ সুরেপ্রেম
বাজে গুরুগুরু শঙ্কার ডঙ্কাবিচিত্র
বাজে বাজে রম্যবীণাপূজা
বাজে রে বাজে রে ডমরু বাজেনাট্যগীতি
বাজো রে বাশঁরি বাজো নাট্যগীতি
বাণী তব ধায় অনন্ত পূজা
বাণী বীণাপাণিবাল্মীকি প্রতিভা
বাণী মোর নাহিপ্রেম
বাদরবরখন নীরদগরজনভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
বাদল-ধারা হল সারাপ্রকৃতি
বাদল-বাউল বাজায় রেপ্রকৃতি
বাদল-মেঘে মাদল বাজেপ্রকৃতি
বাদলদিনের প্রথম কদম ফুলপ্রকৃতি
বাধঁন ছেঁড়ার সাধন হবেপূজা
বাধা দিলে বাধবে লড়াই মরতে হবেপূজা
বার বার সখি বারণ করনুভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
বারতা পেয়েছি প্রেম
বারে বারে পেয়েছি যে তারেপূজা
বারে বারে ফিরে ফিরে তোমার পানেপ্রেম ও প্রকৃতি
বাসন্তী হে ভুবনমোহিনীপ্রকৃতি
বাহির পথে বিবাগি হিয়া কিসের খোঁজে গেলিপ্রেম
বাহির হলেম আমি আপন ভিতর হতেনাট্যগীতি
বাহিরে ভুল হানবে যখন পূজা
বিজয়মালা এনো প্রেম
বিদায় করেছ যারে নয়নজলেপ্রেম
বিদায় নিয়ে গিয়েছিলেম বারে বারেপ্রকৃতি
বিদায় যখন চাইবে তুমি দক্ষিণসমীরেপ্রকৃতি
বিধি ডাগর আঁখি যদি দিয়েছিলপ্রেম ও প্রকৃতি
বিধির বাঁধন কাটবে তুমি এমন শক্তিমানস্বদেশ
বিনা সাজে সাজি দেখা দিয়েছিলে কবেপ্রেম
বিপদে মোরে রক্ষা করপূজা
বিপাশার তীরে ভ্রমিবারে যাইনাট্যগীতি
বিপুল তরঙ্গ রেপূজা
বিমল আনন্দে জাগো রেপূজা
বিরস দিন, বিরল কাজপ্রেম
বিরহ মধুর হল আজিপ্রেম
বিরহে মরিব নাট্যগীতি
বিশ্ব যখন নিদ্রামগন গগন অন্ধকারপূজা
বিশ্বজোড়া ফাঁদ পেতেছ কেমনে দিই ফাঁকিপূজা
বিশ্ববিদ্যাতীর্থপ্রাঙ্গণ করআনুষ্ঠানিক সংগীত
বিশ্ববীণারবেপ্রকৃতি
বিশ্বরাজালয়ে বিশ্ববীণা বাজিছেআনুষ্ঠানিক
বিশ্বসাথে যোগে যেথায় বিহারোপূজা
বীণা বাজাও হে মম অন্তরে পূজা
বুক বেঁধে তুই দাঁড়া দেখিস্বদেশ
বুক যে ফেটে যায়শ্যামা
বুকের বসন ছিঁড়ে ফেলেনাট্যগীতি
বুঝি এল বুঝি এল ওরে প্রাণপ্রেম ও প্রকৃতি
বুঝি ওই সুদূরে ডাকিল মোরেপূজা ও প্রার্থনা
বুঝি বেলা বহে যায়প্রেম
বুঝেছি কে বুঝি নাই বাপূজা
বুঝেছি বুঝেছি সখা ভেঙেছ প্রণয়নাট্যগীতি
বৃথা গেয়েছি বহু গানপ্রেম ও প্রকৃতি
বৃষ্টিশেষের হাওয়া প্রকৃতি
বেঁধেছ প্রেমের পাশে ওহে প্রেমময়পূজা
বেদনা কী ভাষায় রেপ্রকৃতি
বেদনায় ভরে গিয়েছে পেয়ালাপ্রেম
বেধেঁছি কাশের গুচ্ছ আমরা গেথেঁছি
বেলা গেল তোমার পথ চেয়েপূজা
বেলা যায় বহিয়া দাও কহিয়াচিত্রাঙ্গদা
বেলা যে চলে যায়কালমৃগয়া
বেসুর বাজে রেপূজা
বৈশাখ হে মৌনী তাপসপ্রকৃতি
বৈশাখের এই ভোরের হাওয়াপ্রকৃতি
বোলো না, বোলো না, বোলো নাশ্যামা
ব্যর্থ প্রাণের আবর্জনা পুড়িয়ে ফেলেস্বদেশ
ব্যাকুল প্রাণ কোথা সুদূরে ফিরেপূজা
ব্যাকুল বকুলের ফুলে ভ্রমর মরে পথ ভুলেপ্রকৃতি
ব্যাকুল হয়ে বনে বনেবাল্মীকি প্রতিভা
বড়ো থাকি কাছাকাছিনাট্যগীতি
বড়ো বিস্ময় লাগে হেরি তোমারে প্রেম ও প্রকৃতি
বড়ো বেদনার মতো বেজেছ তুমিপ্রেম
ভক্ত করিছে প্রভুর চরণেপূজা
ভক্তহৃদিবিকাশ প্রাণবিমোহনপূজা
ভব কোলাহল ছাড়িয়েপূজা ও প্রার্থনা
ভরা থাক্‌ স্মৃতিসুধায়প্রেম
ভরা বাদর মাহ ভাদর
ভস্মে ঢাকে ক্লান্ত হুতাশনচিত্রাঙ্গদা
ভাগ্যবতী সে যেচিত্রাঙ্গদা
ভাঙা দেউলের দেবতানাট্যগীতি
ভাঙো বাঁধ ভেঙে দাওবিচিত্র
ভাঙ্গল হাসির বাঁধপ্রকৃতি
ভাবনা করিস নে তুইচণ্ডালিকা
ভারত রে তোর কলঙ্কিত পরমাণুরাশিজাতীয় সংগীত
ভালো ভালো তুমি দেখব পালাও কোথাশ্যামা
ভালো মানুষ নই রে মোরাবিচিত্র
ভালো যদি বাস সখীনাট্যগীতি
ভালোবাসি ভালোবাসিপ্রেম
ভালোবাসিলে যদি সে ভালো না বাসেনাট্যগীতি
ভালোবেসে দুখ সেও সুখমায়ার খেলা
ভালোবেসে যদি সুখ নাহিপ্রেম
ভালোবেসে সখী নিভ্বতে যতনেপ্রেম
ভাসিয়ে দে তরী তবেপরিশিষ্ট
ভিক্ষে দে গো ভিক্ষে দেনাট্যগীতি
ভুবন হইতে ভুবনবাসী পূজা
ভুবনজোড়া আসনখানিপূজা
ভুবনেশ্বর হে মোচন কর বন্ধন সবপূজা
ভুল করেছিনু ভুল ভেঙেছেপ্রেম
ভুল কোরো না গো ভুল কোরো নাপ্রেম
ভুলে ভুলে আজ ভুলময়নাট্যগীতি
ভুলে যাই থেকে থেকেপ্রেম
ভেঙ্গে মোর ঘরের চাবিপূজা
ভেঙ্গেছ দুয়ার এসেছ জ্যোতির্ময়পূজা
ভেবেছিলেম আসবে ফিরেপ্রকৃতি
ভোর থেকে আজ বাদল ছুটেছেপ্রকৃতি
ভোর হল বিভাবরী পথ হল অবসানপূজা
ভোর হল যেই শ্রাবনশর্বরীপ্রকৃতি
ভোরের বেলা কখন এসে পরশ করেপূজা
ভয় করব না রেপ্রেম
ভয় করব না রে বিদায়বেদনারেপ্রেম
ভয় নেই রে তোদের প্রেম ও প্রকৃতি
ভয় হতে তব অভয়মাঝেপূজা
ভয় হয় পাছে তব নামে আমিপূজা
ভয়েরে মোর আঘাত করো পূজা
মণিপুরনৃপদুহিতা তোমারে চিনিচিত্রাঙ্গদা
মধু গন্ধে ভরা মৃদু স্নিগ্ধছায়াপ্রকৃতি
মধুঋতু নিত্য হয়ে রইল তোমারনাট্যগীতি
মধুর বসন্ত এসেছেপ্রকৃতি
মধুর মধুর ধ্বনি বাজেবিচিত্র
মধুর মিলননাট্যগীতি
মধুর রূপে বিরাজো হে বিশ্বরাজপূজা
মধুর, তোমার শেষ যে না পাইপূজা
মধ্যদিনে যবে গান বন্ধ করে পাখিপ্রকৃতি
মধ্যদিনের বিজন বাতায়নেপ্রকৃতি
মন জাগ মঙ্গললোকেপূজা
মন জানে মনোমোহন আইলপ্রেম
মন প্রাণ কাড়িয়া লও হে হৃদয়স্বামীপূজা ও প্রার্থনা
মন মোর মেঘেরপ্রকৃতি
মন মোর মেঘের সঙ্গীপ্রকৃতি
মন যে বলে চিনি চিনিপ্রকৃতি
মন রে ওরে মন প্রেম
মন হতে প্রেম যেতেছে শুকায়েপ্রেম ও প্রকৃতি
মনে কি দ্বিধা রেখে গেলেপ্রেম
মনে যে আশা লয়ে প্রেম
মনে রবে কি না রবে আমারেপ্রেম
মনে রয়ে গেল মনের কথাপ্রেম
মনে হল পেরিয়ে এলেমপ্রেম ও প্রকৃতি
মনে হল যেন পেরিয়ে এলেমপ্রকৃতি
মনের মধ্যে নিরবধিপূজা ও প্রার্থনা
মনোমন্দিরসুন্দরীনাট্যগীতি
মনোমোহন গহন যামিনীশেষেপূজা
মন্দিরে মম কে আসিলে হেপূজা
মম অঙ্গনে স্বামী আনন্দেপূজা
মম অন্তর উদাসে প্রকৃতি
মম চিত্তে নিতি নৃত্যেবিচিত্র
মম দুঃখের সাধন যবে করিনুপ্রেম
মম মন উপবনে চলে অভিসারেপ্রকৃতি
মম যৌবননিকুঞ্জে গাহে পাখিপ্রেম
মম রুদ্ধমুকুলদলে এসোপ্রেম
মরণ রে, তুঁহুঁ মম শ্যামসমানভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
মরণসাগরপারে তোমরা অমরপূজা
মরণের মুখে রেখে দূরেপূজা
মরি ও কাহার বাছাবাল্মীকি প্রতিভা
মরি লো মরি আমায় বাঁশিতেপ্রেম
মরুবিজয়ের কেতন উড়াও শূন্যেআনুষ্ঠানিক
মলিন মুখে ফুটুক হাসিনাট্যগীতি
মহানন্দে হেরো গো সবে পূজা ও প্রার্থনা
মহাবিশ্বে মহাকাশে মহাকাল-মাঝেপূজা ও প্রার্থনা
মহারাজ একি সাজে এলে হৃদয়পুরমাঝেপূজা
মহাসিংহাসনে বসি শুনিছ হে বিশ্বপিতপূজা ও প্রার্থনা
মা আমার কেন তোরে ম্লান নেহারিনাট্যগীতি
মা আমি তোর কী করেছিপরিশিষ্ট
মা একবার দাঁড়া গো হেরি চন্দ্রানননাট্যগীতি
মা ওই যে তিনি চলেছেনচণ্ডালিকা
মা কি তুই পরের দ্বারে পাঠাবিস্বদেশ
মা গো এত দিনে মনে হচ্ছে যেনচণ্ডালিকা
মা মিৎ কিল ত্বং বনাঃ শাখাংচিত্রাঙ্গদা
মাঝে মাঝে তব দেখা পাইপূজা ও প্রার্থনা
মাটি তোদের ডাক দিয়েছেচণ্ডালিকা
মাটির প্রদীপখানি আছেবিচিত্র
মাটির বুকের মাঝে বন্দী যে জলবিচিত্র
মাতৃমন্দির পুণ্য অঙ্গন করস্বদেশ
মাধব না কহ আদরবাণীভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
মাধবী হঠাৎ কোথা হতেপ্রকৃতি
মান অভিমান ভাসিয়ে দিয়েপ্রেম
মানা না মানিলি তবুও চলিলিকালমৃগয়া
মায়াবন বিহারিনীশ্যামা
মালা হতে খসে পড়া ফুলেরপূজা
মিছে ঘুরি এ জগতেমায়ার খেলা
মিটিল সব ক্ষুধাপূজা ও প্রার্থনা
মিলনরাতি পোহালোপ্রেম
মুখখানি কর মলিন বিধুর যাবার বেলাপ্রেম
মুখপানে চেয়ে দেখি ভয় হয় মনেপ্রেম
মেঘ বলেছে যাব যাবপূজা
মেঘছায়ে সজল বায়ে মন আমারপ্রেম
মেঘের কোলে কোলে যায় রে চলেপ্রকৃতি
মেঘের কোলে রোদ হেসেছেপ্রকৃতি
মেঘের পরে মেঘ জমেছেপ্রকৃতি
মেঘেরা চলে চলে যায়বিচিত্র
মোদের কিছু নাই রে নাইবিচিত্র
মোদের যেমন খেলা তেমনি যে কাজবিচিত্র
মোর জলে স্থলে কত ছলে মায়াজাল গাঁথিমায়ার খেলা
মোর পথিকেরে বুঝি এনেছপূজা
মোর প্রভাতের এই প্রথম খনেরপূজা
মোর বীণা ওঠে কোন সুরে বাজিপূজা
মোর ভাবনারে কী হাওয়ায়প্রকৃতি
মোর মরণে তোমার হবে জয়পূজা
মোর সন্ধ্যায় তুমি সুন্দরবেশে এসেছপূজা
মোর স্বপন তরীর কে তুই নেয়েপ্রেম
মোর হৃদয়ের গোপন বিজন ঘরেপূজা
মোরা চলব নানাট্যগীতি
মোরা ভাঙব তাপস ভাঙব তোমারপ্রকৃতি
মোরা সত্যের পরে মন আজিবিচিত্র
মোরে ডাকি লয়ে যাও মুক্তদ্বারেপূজা
মোরে বারে বারে ফিরালেপূজা
মোহিনী মায়া এলচিত্রাঙ্গদা
যখন এসেছিলে অন্ধকারেপ্রেম
যখন তুমি বাঁধছিলে তার সে যে বিষমপূজা
যখন তোমায় আঘাত করিপূজা
যখন দেখা দাও নি রাধানাট্যগীতি
যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ণপূজা
যখন পড়বে না মোর পায়েরবিচিত্র
যখন ভাঙল মিলন্ মেলাপ্রেম
যতখন তুমি আমায় বসিয়ে রাখপূজা
যতবার আলো জ্বালাতে চাই নিবে যায়পূজা
যদি আমায় তুমি বাঁচাওপূজা
যদি আসে তবে কেন যেতে চায়প্রেম
যদি এ আমার হৃদয়দুয়ারপূজা
যদি কেহ নাহি চায় আমি লইবমায়ার খেলা
যদি জানতেম আমার কিসের ব্যথাপ্রেম
যদি জোটে রোজনাট্যগীতি
যদি ঝরের মেঘের মতো আমি ধাইপূজা
যদি ঝড়ের মেঘের মতো আমিপূজা
যদি তারে নাই চিনি গোপ্রকৃতি
যদি তোমার দেখা না পাই প্রভুপূজা
যদি তোর ডাক শুনে কেউস্বদেশ
যদি তোর ভাবনা থাকে ফিরে যাস্বদেশ
যদি প্রেম দিলে না প্রাণেপূজা
যদি বারণ কর তবে গাহিব নাপ্রেম
যদি ভরিয়া লইবে কুম্ভপ্রেম ও প্রকৃতি
যদি মিলে দেখা তবে তারি সাথেচিত্রাঙ্গদা
যদি হল যাবার ক্ষণপ্রেম
যদি হায় জীবন পূরণ নাহি হল মমপ্রেম
যদেমি প্রস্ফুরন্নিব
যদেমি প্রস্ফুরন্নির দৃতির্ন দ্মাতো
যদেমি প্রস্ফুরন্নির দৃতির্ন ধ্মাতো অদ্রিরঃ
যা ছিল কালো-ধলো তোমার রঙেপ্রেম
যা পেয়েছি প্রথম দিনে সেই যেন পাই শেষেপূজা
যা হবার তা হবেপূজা
যা হারিয়ে যায় তা আগলেপূজা
যাই যাই ছেড়ে দাও
যাও যাও যদি যাও তবেপূজা
যাও রে অনন্ত ধামে মোহ মায়াকালমৃগয়া
যাওয়া আসারই এই কি খেলাপূজা ও প্রার্থনা
যাক ছিঁড়ে যাক ছিঁড়ে যাক মিথ্যার জালপ্রেম
যাত্রাবেলায় রুদ্র রবে বন্ধনডোর ছিন্ন হবেপূজা
যাত্রী আমি ওরেপূজা ও প্রার্থনা
যাদের চাহিয়া তোমারে ভুলেছি পূজা
যাবই আমি যাবই ওগোবিচিত্র
যাবার বেলা শেষ কথাটি প্রেম
যারা কথা দিয়ে তোমার কথা বলেপূজা
যারা কাছে আছে তারা কাছে থাক্পূজা
যারা বিহান-বেলায় গান এনেছিল প্রেম ও প্রকৃতি
যারে নিজে তুমি ভাসিয়েছিলে পূজা
যারে মরণ-দশায় ধরেনাট্যগীতি
যাহা পাও তাই লওবিচিত্র
যায় দিন শ্রাবণদিন যায়প্রকৃতি
যায় নিয়ে যায় আমায় আপন গানের টানেপ্রেম
যায় যদি যাকচণ্ডালিকা
যায় যদি যাক সাগরতীরেচণ্ডালিকা
যিনি সকল কাজের কাজীপূজা
যুগে যুগে বুঝি আমায় চেয়েছিল সেপ্রেম
যে আমারে দিয়েছে ডাকচণ্ডালিকা
যে আমারে পাঠালো এইচণ্ডালিকা
যে আমি ওই ভেসে চলেবিচিত্র
যে কাঁদনে হিয়া কাঁদিছেবিচিত্র
যে কেবল পালিয়ে বেড়ায় দৃষ্টি এড়ায়বিচিত্র
যে কেহ মোরে দিয়েছ সুখপূজা
যে ছায়ারে ধরব বলে করেছিলেম পণপ্রেম
যে ছিল আমার স্বপনচারিণীপ্রেম
যে তরণীখানি ভাসালে দুজনেআনুষ্ঠানিক
যে তোমায় ছাড়ে ছাড়ুকস্বদেশ
যে তোরে পাগল বলে তারে স্বদেশ
যে থাকে থাক্-না দ্বারেপূজা
যে দিন ফুটল কমল কিছুই জানি নাইপূজা
যে দিন সকল মুকুলপ্রেম
যে ধ্রুবপদ দিয়েছ বাঁধি বিশ্বতানেপূজা
যে ফুল ঝরে সেই তো ঝরেপ্রেম
যে ভালোবাসুক সে ভালোবাসুকনাট্যগীতি
যে মানব আমি সেই মানব তুমিচণ্ডালিকা
যে রাতে মোর দুয়ারগুলিপূজা
যেখানে রূপের প্রভা নয়ন-লোভানাট্যগীতি
যেতে দাও যেতে দাও গেল যারাপ্রকৃতি
যেতে যদি হয় হবেবিচিত্র
যেতে যেতে একলা পথেপূজা
যেতে যেতে চায় না যেতেপূজা
যেথায় তোমার লুট হতেছে ভুবনেপূজা
যেথায় থাকে সবার অধমপূজা
যেন কোন্‌ ভুলের ঘোরেপ্রেম ও প্রকৃতি
যেয়ো না যেয়ো না ফিরেপ্রেম
যোগী হে কে তুমি হৃদি আসনেনাট্যগীতি
যৌবনসরসীনীরে মিলনশতদলপ্রেম
রইল বলে রাখলে কারেস্বদেশ
রক্ষা করো হেপূজা ও প্রার্থনা
রঙ লাগালে বনে বনে কেপ্রকৃতি
রজনী পোহাইল চলেছে যাত্রীদলপূজা ও প্রার্থনা
রজনীর শেষ তারা গোপনে আঁধারেপূজা
রহি রহি আনন্দতরঙ্গ জাগেপূজা
রাখো রাখো রে জীবনে জীবনবল্লভেপূজা
রাখ্‌ রাখ্‌ ফেল্‌ ধনু ছাড়িস নে বাণবাল্মীকি প্রতিভা
রাঙাপদ-পদ্মযুগে প্রণমি গো ভবদারাবাল্মীকি প্রতিভা
রাঙিয়ে দিয়ে যাও যাও যাওবিচিত্র
রাজ অধিরাজ তব ভালে জয়মালানাট্যগীতি
রাজপুরীতে বাজায় বাঁশি বেলাশেষের তানপূজা
রাজভবনের সমাদর সম্মান ছেড়েশ্যামা
রাজরাজেন্দ্র জয় জয়তু জয় হেনাট্যগীতি
রাজা মহারাজা কে জানেবাল্মীকি প্রতিভা
রাজার আদেশ ভাই চোর ধরা চাইশ্যামা
রাজার প্রহরী ওরা অন্যায় অপবাদেশ্যামা
রাতে রাতে আলোর শিখা রাখি জ্বেলেপ্রেম
রাত্রি এসে যেথায় মেশেপূজা
রানীমার পোষা পাখি কোথায় উড়ে গেছেচণ্ডালিকা
রিমিকি ঝিমিকি ঝরে ভাদরের ধারাপ্রেম ও প্রকৃতি
রিম্‌ ঝিম্‌ ঘন ঘন রে বরষেবাল্মীকি প্রতিভা
রুদ্রবেশে কেমন খেলাপূজা
রূপসাগরে ডুব দিয়েছিপূজা
রোদন ভরা এ বসন্তপ্রেম
রয় যে কাঙাল শূন্য হাতেবিচিত্র
লক্ষী যখন আসবে তখন কোথায় তারে দিবি রে ঠাঁইপূজা
লজ্জা, ছি ছি লজ্জাচণ্ডালিকা
লহো লহো তুলি লও হে ভূমিতল হতে ধূলিম্লান এ পরানপূজা
লহো লহো তুলে লহো নীরব বীণাখানিপূজা
লহো লহো ফিরে লহোচিত্রাঙ্গদা
লিখন তোমার ধূলায় হয়েছে ধূলিপ্রেম
লুকালে ব'লেই খুঁজে বাহির করাপ্রেম
লুকিয়ে আস আঁধার রাতে, তুমি আমার বন্ধুপূজা
শক্তিরূপ হেরো তাঁর আনন্দিত অতন্দ্রিত হেরো তাঁর আনন্দিত অতন্দ্রিতপূজা
শরত-আলোর কমলবনেপ্রকৃতি
শরতে আজ কোন্‌ অতিথি এলপ্রকৃতি
শরৎ তোমার অরুণ আলোর অঞ্জলিপ্রকৃতি
শাঙনগগনে ঘোর ঘনঘটাভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
শান্ত হ রে মম চিত্ত নিরাকুলপূজা
শান্তি করো বরিষন নীরব ধারেপূজা
শান্তিসমুদ্র তুমি গভীরপূজা
শিউলি ফুল শিউলি ফুলপ্রকৃতি
শিউলি ফোটা ফুরোল যেইপ্রকৃতি
শীতল তব পদছায়াপূজা
শীতের বনে কোন্‌ সে কঠিনপ্রকৃতি
শীতের হাওয়ার লাগল নাচন প্রকৃতি
শুকনো পাতা কে যে ছড়ায় ওই দূরেপ্রকৃতি
শুধু একটি গণ্ডুষ জলচণ্ডালিকা
শুধু কি তার বেঁধেই তোর কাজ ফুরাবেপূজা
শুধু তোমার বাণী নয় গোপূজা
শুধু যাওয়া আসা শুধু স্রোতে ভাসাবিচিত্র
শুন নলিনী, খোলো গো আঁখিপ্রেম ও প্রকৃতি
শুন লো শুন লো বালিকাভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
শুন, সখি, বাজই বাঁশিভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
শুনি ওই রুনুঝুনু পায়েনাট্যগীতি
শুনেছে তোমার নাম অনাথ আতুর জনপূজা
শুভ কর্মপথে ধরস্বদেশ
শুভ মিলনলগনে বাজুক বাঁশিপ্রেম
শুভদিনে এসেছে দোঁহে চরণে তোমারআনুষ্ঠানিক
শুভদিনে শুভক্ষণে পৃথিবী আনন্দমনেআনুষ্ঠানিক সংগীত
শুভ্র আসনে বিরাজপূজা
শুভ্র নব শঙ্খ তবপূজা
শুভ্র নব শঙ্খ তব গগন ভরি বাজেপূজা
শুভ্র প্রভাতে পূর্বগগনে উদিলপূজা ও প্রার্থনা
শুষ্কতাপের দৈত্যপুরে দ্বার ভাঙবে ব'লেপ্রকৃতি
শূন্য প্রাণ কাঁদে সদা- প্রাণেশ্বরপূজা
শূন্য হাতে ফিরিপূজা
শৃণ্বন্ত্ত বিশ্বে অমৃতস্য
শেষ গানেরই রেশ নিয়ে যাও চলেপ্রকৃতি
শেষ নাহি যে শেষ কথা কে বলবেপূজা
শেষ ফলনের ফসল এবার নাট্যগীতি
শেষ বেলাকার শেষের গানেপ্রেম
শোক তাপ গেল দূরেকালমৃগয়া
শোনো তাঁর সুধাবাণী শুভমূহুর্তে শান্তপ্রাণেপূজা
শোনো শোনো আমাদের ব্যথাজাতীয় সংগীত
শোন্ তোরা তবে শোন্বাল্মীকি প্রতিভা
শোন্ রে শোন্ অবোধ মননাট্যগীতি
শোন্‌ তোরা শোন্‌ এ আদেশবাল্মীকি প্রতিভা
শ্যাম রে, নিপট কঠিন মন তোর ভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
শ্যামল ছায়া, নাইবা গেলেপ্রকৃতি
শ্যামল শোভন শ্রাবণপ্রকৃতি
শ্যামা এবার ছেড়ে চলেছি মাবাল্মীকি প্রতিভা
শ্রান্ত কেন ওহে পান্থপূজা
শ্রাবণ, তুমি বাতাসে কার আভাস পেলেপ্রকৃতি
শ্রাবণবরিষন পার হয়েপ্রকৃতি
শ্রাবণমেঘের আধেক দুয়ার ওই খোলাপ্রকৃতি
শ্রাবণের গগনের গায়প্রকৃতি
শ্রাবণের গগনের গায়প্রকৃতি
শ্রাবণের ধারার মতো পড়ুক ঝরেপূজা
শ্রাবণের পবনে আকুল বিষন্ন সন্ধ্যায়প্রেম
শ্রাবণের বারিধারাপ্রেম ও প্রকৃতি
সংশয়তিমিরমাঝে না হেরি গতি হেপূজা
সংসার যবে মন কেড়ে লয়পূজা
সংসারে কোনো ভয় নাহি নাহিপূজা
সংসারে তুমি রাখিলে মোরে যে ঘরেপূজা
সংসারেতে চারি ধার করিয়াছে অন্ধকারপূজা ও প্রার্থনা
সকরুণ বেণু বাজায়ে কে যায়প্রেম
সকল গর্ব দূর করি দিবপূজা
সকল জনম ভরে ও মোর দরদিয়াপূজা
সকল ভয়ের ভয় যে তারেপূজা
সকল হৃদয় দিয়ে ভালোবেসেছি যারেপ্রেম
সকলই ফুরাইল যামিনী পোহাইলপ্রেম ও প্রকৃতি
সকলকলুষতামসহর জয় হোক তবপূজা
সকলি ফুরাল, স্বপন-প্রায়কালমৃগয়া
সকলেরে কাছে ডাকি আনন্দ-আলয়ে থাকিপরিশিষ্ট
সকাতরে ওই কাঁদিছেপূজা ও প্রার্থনা
সকাল বেলার কুঁড়ি আমার বিকালেবিচিত্র
সকাল-সাঁজে ধায় যে ওরাপূজা
সকালবেলার আলোয় বাজেপ্রেম
সখা মোদের বেঁধে রাখো প্রেমডোরেপরিশিষ্ট
সখা সাধিতে সাধাতে কত সুখনাট্যগীতি
সখা হে, কী দিয়ে আমি তুষিব তোমায়প্রেম ও প্রকৃতি
সখা, আপন মন নিয়েপ্রেম
সখা, তুমি আছ কোথাপরিশিষ্ট
সখি বলো দেখি লোপ্রেম
সখি রে, পিরীত বুঝবে কেভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
সখি লো, সখি লো, নিকরুণ মাধবভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
সখী আঁধারে একেলা ঘরে মন মানে নাপ্রেম
সখী আমারি দুয়ারে কেন আসিলপ্রেম
সখী আর কত দিন সুখহীন শান্তিহীননাট্যগীতি
সখী ওই বুঝি বাঁশি বাজেপ্রেম
সখী তোরা দেখে যা এবারপ্রেম
সখী প্রতিদিন হায় এসেপ্রেম
সখী বহে গেল বেলাপ্রেম
সখী ভাবনা কাহারে বলেপূজা
সখী সে গেল কোথায়প্রেম
সখী, সাধ করে যাহা দিবে তাই লইবমায়ার খেলা
সঘন গহন রাত্রি ঝরিছে শ্রাবণধারাপ্রকৃতি
সঘন ঘন ছাইল গগন ঘনাইয়াপ্রকৃতি
সজনি সজনি রাধিকা লোভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
সতিমির রজনী সচকিত সজনীভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
সত্য মঙ্গল প্রেমময় তুমিপূজা
সদা থাকো আনন্দে সংসারে নির্ভয়েপূজা
সন্ত্রাসের বিহ্বলতা নিজেরে অপমানচিত্রাঙ্গদা
সন্ধ্যা হল গো ও মা সন্ধ্যা হলপূজা
সন্ন্যাসী যে জাগিলবিচিত্র
সন্ন্যাসী যে জাগিল ওইবিচিত্র
সফল করো হে প্রভু আজি সভাপূজা
সব কাজে হাত লাগাই মোরাবিচিত্র
সব দিবি কে, সব দিবি পায়প্রকৃতি
সব-কিছু কেন নিল নাপ্রেম
সবাই যারে সব দিতেছেপূজা
সবার মাঝারে তোমারে স্বীকার করিব হেপূজা
সবার সাথে চলতেছিল অজানা এই পথের অন্ধকারেপ্রেম
সবারে করি আহ্বানআনুষ্ঠানিক
সবে আনন্দ করোপূজা
সবে মিলি গাও রেপূজা ও প্রার্থনা
সভায় তোমার থাকি সবার শাসনেপূজা
সমুখে শান্তিপারাবারআনুষ্ঠানিক সংগীত
সমুখেতে বহিছে তটিনীকালমৃগয়া
সময় কারো যে নাইপ্রেম
সর্দার মশয় দেরি না সয়বাল্মীকি প্রতিভা
সর্ব খর্বতারে দহেপূজা
সহজ হবি, সহজ হবি, ওরে মন, সহজ হবিপূজা
সহসা ডালপালা তোর উতলা-যেপ্রকৃতি
সহে না যাতনাপ্রেম ও প্রকৃতি
সহে না, সহে না, কাঁদে পরানবাল্মীকি প্রতিভা
সাজাব তোমারে হে ফুল দিয়ে দিয়েপ্রেম
সাত দেশেতে খুঁজে খুঁজেচণ্ডালিকা
সাথি মোদের ও যে নেয়ে-শ্যামা
সাধ ক'রে কেন সখা ঘটাবে গেরোনাট্যগীতি
সাধের কাননে মোর রোপণ করিয়াছিনুপ্রেম ও প্রকৃতি
সারা জীবন দিল আলোপূজা
সারা নিশি ছিলেম শুয়েপ্রকৃতি
সারা নিশি ছিলেম শুয়ে বিজন ভুঁয়েপ্রকৃতি
সারা বরষ দেখি না মাবিচিত্র
সার্থক কর' সাধনপূজা
সার্থক জনম আমার জন্মেছি এই দেশেস্বদেশ
সীমার মাঝে, অসীম, তুমি বাজাও আপন সুরপূজা
সুখহীন নিশিদিন পরাধীন হয়েপূজা
সুখে আছি সুখে আছিপ্রেম
সুখে আমায় রাখবে কেনপূজা
সুখে থাকো আর সুখী করো সবেআনুষ্ঠানিক
সুখের মাঝে তোমায় দেখেছিপূজা ও প্রার্থনা
সুধাসাগরতীরে হে এসেছে নরনারীআনুষ্ঠানিক
সুনীল সাগরের শ্যামল কিনারেপ্রেম
সুন্দর বটে তব অঙ্গদখানিপূজা
সুন্দর বহে আনন্দমন্দানিলপূজা
সুন্দর হৃদিরঞ্জন তুমিপ্রেম
সুন্দরের বন্ধন নিষ্ঠুরের হাতেবিচিত্র
সুমঙ্গলী বধু সঞ্চিত রেখো প্রাণে স্নেহমধুআনুষ্ঠানিক সংগীত
সুমধুর শুনি আজি প্রভুপূজা ও প্রার্থনা
সুর ভুলে যেই ঘুরে বেড়াই কেবল কাজেপূজা
সুরের গুরু দাও গো সুরের দীক্ষাপূজা
সুরের জালে কে জড়ালে আমার মননাট্যগীতি
সে আমার গোপন কথা শুনে যাপ্রেম
সে আসি কহিল, 'প্রিয়ে, মুখ তুলে চাওনাট্যগীতি
সে আসে ধীরে যায় লাজে ফিরেপ্রেম
সে কি ভাবে গোপন বরেপ্রকৃতি
সে কোন্ বনের হরিণবিচিত্র
সে কোন্‌ পাগল যায় যায় পথে তোরবিচিত্র
সে জন কে, সখী, বোঝা গেছেমায়ার খেলা
সে দিন আমায় বলেছিলেপ্রকৃতি
সে দিনে আপদ আমার যাবে কেটেপূজা
সে যে পথিক আমারচণ্ডালিকা
সে যে পাশে এসে বসেছিলপ্রেম
সে যে বাহির হল আমি জানিপ্রেম
সে যে মনের মানুষ, কেন তারে বসিয়ে রাখিস নয়নদ্বারেপূজা
সেই তো তোমার পথের বঁধুপ্রকৃতি
সেই তো বসন্ত ফিরে এলপ্রকৃতি
সেই ভালো সেই ভালোপ্রেম
সেই ভালো, মা, সেই ভালোচণ্ডালিকা
সেই যদি সেই যদিপ্রেম ও প্রকৃতি
সেই শান্তিভবন ভূবন কোথা গেলমায়ার খেলা
সেইতো আমি চাই, চাই রে পূজা
সেদিন দু'জনে দুলেছিনু বনেপ্রেম
সোনার পিঞ্জর ভাঙিয়ে আমারপ্রেম ও প্রকৃতি
স্বপন যদি ভাঙিলে রজনী প্রভাতেপূজা
স্বপন-পারের ডাক শুনেছিবিচিত্র
স্বপনলোকের বিদেশিনী কে যেন এলেপ্রেম ও প্রকৃতি
স্বপনে দোঁহে ছিনু কী মোহেপ্রেম
স্বপ্নমদির নেশায় মেশা এ উন্মত্ততাপ্রেম
স্বপ্নে আমার মনে হলপ্রকৃতি
স্বরূপ তাঁর কে জানেপূজা ও প্রার্থনা
স্বর্গে তোমায় নিয়ে যাবে উড়িয়েনাট্যগীতি
স্বর্ণবর্ণে সমুজ্জ্বল নব চম্পাদলেচণ্ডালিকা
স্বামী তুমি এসো আজপূজা
হতাশ হোয়ো না হোয়ো নাশ্যামা
হদয়ে রাখো গো দেবী চরণ তোমারনাট্যগীতি
হবে জয়, হবে জয়, হবে জয়পূজা
হবে সখা হবে তবে হবে জয়
হম যব না রব সজনীভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
হম, সখি, দারিদ নারীভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
হরষে জাগো আজিপূজা
হরি তোমায় ডাকি সংসারে একাকীপূজা ও প্রার্থনা
হল না লো হল না সইপ্রেম
হা আ আ আইনাট্যগীতি
হা কে বলে দেবেনাট্যগীতি
হা সখী, ও আদরে আরো বাড়ে মনোব্যথাপ্রেম ও প্রকৃতি
হা হতভাগিনী, একি অভ্যর্থনা মহতেরচিত্রাঙ্গদা
হাঁ গো মা সেই কথাই তো বলে গেলেনচণ্ডালিকা
হাঁচ্ছো ভয় কী দেখাচ্ছনাট্যগীতি
হাওয়া লাগে গানের পালেপূজা
হাটের ধুলা সয় না যে আরবিচিত্র
হাতে লয়ে দীপ অগণনপূজা ও প্রার্থনা
হায় গো ব্যথায়পূজা
হার মানালে গো ভাঙিলে অভিমানপূজা
হার-মানা হার পরাব তোমারপূজা
হারে রে রে রে রেবিচিত্র
হাসি কেন নাই ও নয়নেপ্রেম ও প্রকৃতি
হাসিরে কি লুকাবি লাজেপ্রেম
হায় অতিথি এখনি কি হল তোমারপ্রেম
হায় এ কী সমাপনশ্যামা
হায় কী দশা হল আমারবাল্মীকি প্রতিভা
হায় কী হলকালমৃগয়া
হায় কে দিবে আর সান্ত্বনা পূজা
হায় রে ওরে যায় না কি জানাপ্রেম
হায় রে হায় রে নূপুরশ্যামা
হায় হতভাগিনীপ্রেম
হায় হায় রে, হায় পরবাসীবিচিত্র
হায় হায় হায় দিন চলি যায়বিচিত্র
হায় হেমন্তলক্ষ্মী তোমার নয়নপ্রকৃতি
হিংসায় উন্মত্ত পৃথিবীপূজা
হিমের রাতের ওই গগনেরপ্রকৃতি
হিয়া কাঁপিছে সুখে কি দুখে সখীপ্রেম ও প্রকৃতি
হিয়ামাঝে গোপনে হেরিয়েপ্রেম ও প্রকৃতি
হৃদয় আমার নাচেরে আজিকেপূজা
হৃদিমন্দিরদ্বারে বাজে সুমঙ্গল শঙ্খপূজা
হৃদয় আমার ওই বুঝি তোর বৈশাখী ঝড়প্রকৃতি
হৃদয় আমার প্রকাশ হল অনন্ত আকাশেপূজা
হৃদয় মোর কোমল অতিপ্রেম ও প্রকৃতি
হৃদয়ক সাধ মিশাওল হৃদয়েভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী
হৃদয়নন্দনবনে নিভৃত এ নিকেতনেপূজা
হৃদয়বসন্তবনে যে মাধুরী বিকাশিলশ্যামা
হৃদয়বাসনা পূর্ণ হল আজিপূজা
হৃদয়বেদনা বহিয়া প্রভু এসেছি তব দ্বারেপূজা
হৃদয়শশী হৃদিগগনে উদিল মঙ্গললগনেপূজা
হৃদয়ে ছিলে জেগেপ্রকৃতি
হৃদয়ে তোমার দয়া যেন পাইপূজা
হৃদয়ে মন্দ্রিল ডমরু গুরু গুরুপ্রকৃতি
হৃদয়ে হৃদয় আসি মিলে যায় যেথাপূজা
হৃদয়ের এ কূল ও কূল দু কূলপ্রেম
হৃদয়ের মণি আদরিণী মোরপ্রেম ও প্রকৃতি
হে অনাদি অসীম সুনীল অকূল সিন্ধুপূজা ও প্রার্থনা
হে অন্তরের ধনপূজা
হে আকাশবিহারী নীরদবাহন জলবিচিত্র
হে কৌন্তেয় ভালো লেগেছিল বলেচিত্রাঙ্গদা
হে ক্ষণিকের অতিথিপ্রেম
হে ক্ষমা করো নাথ ক্ষমা করোশ্যামা
হে চিরনূতন, আজি এ দিনেরপূজা
হে নবীনা প্রতিদিনের পথের ধূলায়প্রেম
হে নিখিলভারধারণ বিশ্ববিধাতাপূজা
হে নিরুপমা গানে যদি লাগেপ্রেম
হে নুতন দেখা দিক আরবারআনুষ্ঠানিক সংগীত
হে বিদেশী এসো এসোশ্যামা
হে বিরহী হায় চঞ্চল হিয়া তবপ্রেম
হে ভারত আজি তোমারিজাতীয় সংগীত
হে ভারত আজি তোমারি সভায়জাতীয় সংগীত
হে মন, তাঁরে দেখো পূজা ও প্রার্থনা
হে মহাজীবন হে মহামরণপূজা
হে মহাজীবন হে মহামরনপূজা
হে মহাদুঃখ হে রুদ্র হে ভয়ঙ্করপূজা
হে মহাপ্রবল বলীপূজা
হে মাধবী, দ্বিধা কেনপ্রকৃতি
হে মোর চিত্ত পুণ্য তীর্থে জাগোস্বদেশ
হে মোর দেবতা ভরিয়া এ দেহ প্রাণপূজা
হে সখা বারতা পেয়েছি মনে মনেপ্রেম
হে সখা মম হৃদয়ে রহোপূজা
হে সন্ন্যাসী হিমগিরি ফেলে নীচে নেমে এলেপ্রকৃতি
হেথা যে গান গাইতে আসাপূজা
হেমন্তে কোন্‌ বসন্তেরই বাণীপ্রকৃতি
হেরি অহরহ তোমারি বিরহ পূজা
হেরি তব বিমলমুখভাতিপূজা
হেরিয়া শ্যামল ঘন নীল গগনেপ্রকৃতি
হেলাফেলা সারা বেলাপ্রেম
হো এল এল এল রে দস্যুর দলচিত্রাঙ্গদা
হ্যাঁ মা আমি বসেছি
হ্যাদে গো নন্দরানীবিচিত্র

গানের সংখ্যা : ২১৭২


Copyright (c) Think Simple Lab 2010 - 2012. All rights reserved.
Click here to contact us with feedbacks and suggestions.
This site does not support iPhone/iPad Safari browser yet.